গত ২৪ নভেম্বর শেষ হলো বেসামরিক বিমান চলাচল সংস্থা (আইসিএও) ঘোষণা অনুযায়ী মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট ছাড়া হাতে লেখা পাসপোর্টে ভ্রমণ করার বাধা। তথ্য অনুযায়ী প্রায় এক কোটির মত প্রবাসি বিভিন্ন দেশে অবস্থান করছেন। দেশ-বিদেশে থাকা ভ্রমণ ইচ্ছুক বাংলাদেশিদের এমআরপি দিতে সরকার বিভিন্ন সময় নানান কার্যক্রমের ব্যবস্থা গ্রহণ করেন। বর্তমান সরকার কাজের গতি দ্রুত করতে আউটসোর্সিং-এর মাধ্যমে বিভিন্ন দেশে এমআরপি সম্পন্ন করার জন্য বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছিলেন। আর এই নিয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতা, দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগের পাল্লার ওজনও কম নয়। মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম তেল সমৃদ্ধ ধনীদেশ কুয়েত, এখানে কতজন প্রবাসী আছে এর সঠিক কোন তথ্য না থাকলেও ধারণা করা হয় প্রায় দুই লক্ষাধিক প্রবাসী বাংলাদেশি বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত আছেন।

বাংলাদেশের রেমিটেন্স খাতের বড় একটি অংশ এই কুয়েত থেকে যায়, যার গড় তুলনা অনেক দেশ থেকে কম নয়। কুয়েতে বাংলাদেশ দূতাবাসে ২০১২ সালের জানুয়ারি মাসে এমআরপি প্রদান শুরু হয়েছিল। কোন প্রকার আউটসোর্সিং ছাড়া এ পর্যন্ত ১৪৩১৫০ জনের এমআরপি সম্পন্ন করেছেন কুয়েতস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস। চলতি বছরের ২৫ নভেম্বর দূতাবাসের হেড অব চেন্সরি কাউন্সিলর এসএম মাহবুবুল আলমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি সংবাদ মাধ্যমকে এই তথ্য দেন।

তিনি আরও বলেন, তাদের ধারণা ৩০ থেকে ৪০ হাজার প্রবাসী বিভিন্ন সময়ে ছুটিতে দেশে গিয়ে তাদের পাসপোর্ট এমআরপিতে রূপান্তরিত করেছেন। বর্তমানে গড়ে ১০/১২ জন প্রবাসী দূতাবাসে আসেন এমআরপি গ্রহণ করতে। কোনো প্রকার সমস্যা না হলে জরুরীভাবে ৩ সপ্তাহ এবং সাধারণভাবে দেড় মাসের মধ্যে ডেলিভারি দিয়ে থাকেন। এই সময় বেধে দেয়ার পূর্বে যদি (ঢাকা থেকে) তাদের হাতে পাসপোর্ট পৌঁছে সে ক্ষেত্রে ফোন করে ওই প্রবাসিকে জানিয়ে দেয়া হয়। এক্ষেত্রে কোন প্রকার ত্রুটির কারণে বিড়ম্বনা হলেও ফোন করে প্রবাসিকে জানিয়ে দেন এতে কিছুটা হলেও ভোগান্তি লাগব হয় প্রবাসিদের।

প্রথম দিকে ভিড়ের কারণে কিছুটা বিড়ম্বনায পোহাতে হয়েছিল প্রবাসিদের বর্তমানে তারা দু দিনে পাসপোর্ট দিয়ে দেন। প্রথম বারে ছবি উঠানো, ফিঙ্গারপ্রিন্টসহ সকল কার্যক্রম শেষ করেন এবং দ্বিতীয় দিনে (ডেলিভারির তারিখে) এসে পাসপোর্ট গ্রহণ করতে পারেন।

কাউন্সিলর মাহবুবুল আলম আরো জানান সঠিক সময়ে সকল প্রবাসিদের হাতে এমআরপি পৌঁছে দিতে বিভিন্নভাবে প্রচারণার উদ্যোগ নিয়েছেন বর্তমান কুয়েতে বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আসহাব উদ্দিন (অব.) এনডিসি, পিএসসি। বর্তমানে কুয়েতে এমআরপি প্রায় সম্পন্ন হয়েছে বলে মনে করেন। তিনি সকলের প্রতি আহ্বান জানান যত দ্রুত সম্ভব এমআরপি গ্রহণ করতে।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন