বিপিএলের তৃতীয় আসরে চট্টগ্রাম পর্বে উত্তেজনাপূর্ণ নিজেদের শেষ ম্যাচে তামিমের চিটাগং ভাইকিংসকে ৫ উইকেটে হারিয়ে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে উঠে এসেছে মাশরাফি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

অন্যদিকে, এ হারে বিপিএলের তৃতীয় আসর থেকে ছিটকে পড়ার শঙ্কায় চিটাগং ভাইকিংস। বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করে ৫ উইকেটে ১৩৬ রান করে স্বাগতিকরা। জবাবে ৫ উইকেট আর ২ বল হাতে রেখে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় কুমিল্লা। ১৩৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি কুমিল্লার। দ্বিতীয় ওভারেই ফিরে যান লিটন দাস (৩)। তাসকিন আহমেদের বল উড়িয়ে মারতে গিয়ে মিডঅনে জিয়াউর রহমানের হাতে ধরা পড়েন লিটন। শুরুতে লিটনের উইকেট হারালেও আহমেদ শেহজাদকে সঙ্গে নিয়ে দ্বিতীয় উইকেটে ৫২ রানের জুটি গড়েন ইমরুল। ইমরুল ৩৫ রান করে বিদায় নিলেও তৃতীয় উইকেটে শোয়েব মালিকের সঙ্গে ৩৯ রানের জুটি গড়েন শেহজাদ। বাক্তিগত ৩৭ রান করে শেহজাদ ফিরলে ভাঙে জুটি। এরপর দলীয় ১১০ ও ১২৩ রানে জাইদি (৮) ও শুভাগত হোমের উইকেট হারায় কুমিল্লা। তবে অলক কাপালিকে নিয়ে দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন শোয়েব মালিক। শেষ দুই ওভারে কুমিল্লার জয়ের জন্য প্রয়োজন পড়ে ১৬ রান। মোহাম্মদ আমিরের করা ইনিংসের ১৯তম ওভারে মালিকের এক চারের সাহায্যে ৯ রান তোলে কুমিল্লা। শেষ ওভারে কুমিল্লার প্রয়োজন ছিল ৭ রান। বিলাওয়াল ভাট্টির প্রথম বলেই বিমার মারলে সিঙ্গেলসহ ২ রান পায় কুমিল্লা। ফ্রি-হিটে মালিক বাউন্ডারি মারতে না পারলেও নেন ২ রান। পরের দুই বলে থেকে একটি করে সিঙ্গেল নেন দুই ব্যাটসম্যান। আর চতুর্থ বলে ছক্কা হাঁকিয়ে কুমিল্লার জয় নিশ্চিত করেন মালিক। এর আগে, টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ওপেনার তামিম ইকবাল ও শ্রীলঙ্কান তারকা তিলকরত্নে দিলশানের ঝড়ো সূচনায় বড় সংগ্রহের পথেই এগুচ্ছিল দলটি। কিন্তু ৮ম ওভারের ২য় বলে দলীয় ৫১ রানে বিদায় নেন তামিম (২৭ রান)। পরে দিলশানের ৩৯ ও উমর আকমলের হার না মানা ৪৯ রানের ইনিংসে চিটাগাং ১৩৬ রান সংগ্রহ করে। উল্লেখ্য, বিপিএলের চট্টগ্রাম পর্বের শেষ ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হওয়ার পর দুদিন বিরতির পর আবার ঢাকায় শুরু হবে খেলা।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন