ব্রেকিং নিউজ
Home - উপকূল - ৮ ডিসেম্বর : পিরোজপুর হানাদার মুক্ত দিবস

৮ ডিসেম্বর : পিরোজপুর হানাদার মুক্ত দিবস

পিরোজপুর প্রতিনিধি:

৮ ডিসেম্বর। পিরোজপুর হানাদার মুক্তদিবস। ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের নয় মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ শেষে এই দিনে পিরোজপুর পাকহানাদার মুক্ত হয়, ঘরে ঘরে উড়েছিল লাল সবুজের বিজয় পতাকা। পিরোজপুরের ইতিহাসে এ দিনটি বিশেষ একটি স্মরণীয় দিন।
মুক্তিযুদ্ধের নবম সেক্টরের অধীন সুন্দরবন সাব-সেক্টর কমান্ডার প্রয়াত মেজর জিয়াউদ্দিনের নেতৃত্বে পিরোজপুরকে হানাদার মুক্ত করতে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের একটি দল সুন্দরবন থেকে ৭ ডিসেম্বর রাত ১০টায় পিরোজপুরের দক্ষিণপ্রান্ত পাড়েরহাট বন্দর দিয়ে শহরে প্রবেশ করে। মুক্তিবাহিনীর আগমনের খবর পেয়ে পাক হায়েনারা ৮ ডিসেম্বর সকালে শহরের পূর্বদিকের কচা নদী দিয়ে ল -স্টীমারযোগে বরিশালের উদ্দেশ্যে পালিয়ে যায়। অবশেষে দীর্ঘ আট মাস অবরুদ্ধ থাকার পর ৮ ডিসেম্বর পিরোজপুর হানাদার মুক্ত হয়।
প্রতি বছর দিনটি যথাযোগ্য মর্যাদায় সরকারী ভাবে পালন করা হয়। সকালে শহীদ বেদিতে পুস্পার্ঘ অর্পণ, বর্ণাঢ্য আনন্দ র‌্যালী ,আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।
১৯৭১ সালের ৪ মে পিরোজপুরে প্রথম পাক বাহিনী প্রবেশ করে। শহরের প্রবেশদ্বার হুলারহাট নৌ-বন্দর থেকে পাকহানাদার বাহিনী শহরে প্রবেশের পথে প্রথমেই মাছিমপুর ও কৃষ্ণনগর গ্রামে শুরু করে হত্যাযজ্ঞ। এরপর দীর্ঘ ৮ মাস স্থানীয় শান্তিকমিটির নেতা ও রাজাকারদের সহায়তায় বিভিন্ন এলাকায় সংখ্যালঘু ও স্বাধীনতা পক্ষের লোকজনদের বাড়ি-ঘরে আগুন দেয়া হয়, হত্যা করা হয় প্রায় ৫০ হাজার মুক্তিকামী মানুষকে । সম্ভ্রম হারান প্রায় ৫ হাজার মা-বোন।

Leave a Reply

x

Check Also

পিরোজপুরের স্বরুপকাঠিতে বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যানের দলবলের হামলায় সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান নিহত

পিরোজপুর প্রতিনিধি 🔴 পিরোজপুরের স্বরূপকাঠি উপপজেলার আটঘর কুড়িয়ানা ইউনিয়নে পূর্ব বিরোধ ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র ...