মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি >>

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় মেয়েকে হত্যা দায়ে মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামী বাবা মহারাজ হাওলাদার (৫৫) কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার বিকেলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঠবাড়িয়া থানার উপপরিদর্শক জাফর আহমেদ ও আল মামুনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ বাগেরহাট জেলার ফকিরহাটে অভিযান চালিয়ে বটতলা শ্মশান কালী মন্দির এলাকা থেকে মহারাজ হাওলাদারকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত মহারাজ হাওলাদার উপজেলার ছোট শিংগা গ্রামের আলী হোসেন হাওলাদারের ছেলে। সে দীর্ঘদিন ধরে পলাতক ছিল।

থানা সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার শিংগা গ্রামের মহারাজ হাওলাদার ২০০৫ সালের নিজের মেয়ে জেসমিন আক্তার রিংকু(১৫)কে গলা টিপে  হত্যা করে । পওে এ হত্যার ঘটনা আত্মহত্যা বলে প্রচারণা চালায় পাষ- বাবা মহারাজ হাওলাদার। এঘটনায় মঠবাড়িয়া থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়। পরে পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে নিশ্চিত হন মেয়ে জেসমিন আক্তার রিংকুর নামে পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানীতে একটি বীমা করেছিল মহারাজ হাওলাদার। ওই বীমার টাকা মৃত্যু দাবি হিসেবে পেতে মহারাজ মেয়েকে গলা টিপে হত্যা করে।

পুলিশী তদন্তের পর অপমৃত্যু মামলাটি আইনগতভাবে হত্যা মামলায় রুপান্তর করে পুলিশ। এরপর হত্যাকারী বাবা মহারাজ পলাতক হন।

এ হত্যা মামলায় আদালতে সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে ২০১৬ সালে পিরোজপুর জেলা দায়রা জজ আদালত মহারাজ হাওলাদারের অনুপস্থিতিতে তাকে মৃত্যুদন্ড প্রদান করেন।

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আব্দুল্লাহ্ বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, গ্রেফতারকৃত মহারাজ হাওলাদারকে আজ বুধবার আদালতে সোপর্দ করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন