মার্চ ৩১, ২০২০

আজকের মঠবাড়িয়া

সত্য প্রচারে সোচ্চার

পাথরঘাটায় হাত পা বাঁধা স্কুল ছাত্র উদ্ধার

 

পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি <>
বরগুনার পাথরঘাটায় বেড়িবাধের বাইরে নদীতীর থেকে এক শিক্ষার্থীকে হাতপা বাধাঁ অবস্থায় শনিবার রাতে উদ্ধার করেছে পাথরঘাটা থানা পুলিশ। সে বরগুনা জেলা শহরের উদয়ন স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থী এবং বরগুনা সদর উপজেলার জাকিরতবক গ্রামের মো. আ. হালিম মিয়ার পূত্র।
পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, শনিবার রাত আটটার দিকে পাথরঘাটা শহরের দক্ষিনে বিষখালী নদীতীরে বেরিবাঁধের বাইরে থেকে স্থানীয় মানুষ সংবাদ দিলে আরিফকে হাত পা বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে এবং হাসপাতালে ভর্তি করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। ওই ছাত্রের বুকে ব্লেেেডর আঁচড়ের দাগ রয়েছে।
কিশোরের ভগ্নিপতি কামরুল হাসান গতকাল রবিবার দুপুরে জানান,এর আগে গত শনিবার বেলা দুইটার দিকে দিকে বরগুনা শহরের রংধনু ক্লিনিকের সামনে থেকে রুমালে চেতনা নাশক ঔষধ দিয়ে অপহরণ করে অজ্ঞাত কয়েক জন। এসময় তার মুখে স্কচটেপ দিয়ে বন্ধ ছিল।
উদ্ধার হওয়া স্কুল ছাত্রের নাম আরিফুল ইসলাম (১৪)। তার মা রিনা বেগম জানান, তার ছেলে বরগুনার উদয়ন স্কুল এন্ড কলেজের প্রধান শিক্ষকের বাসায় থেকে লেখাপড়া করে। বাজার থেকে একটি বই কেনার জন্য বের হলে তাকে আর খুঁজে পাওয়া যাচ্চিল না তবে রাত ১০টার পর পাথরঘাটা থানা থেকে উদ্ধারে খবর পাই।
তার বাবা দীর্ঘদিন কারা বাসের পর জামিনে ছাড়া পেয়েছে। তার বিরুদ্ধে ডাকাতি,দস্যুতা, ধর্ষন,মানবপাচার,ও অস্ত্র সহ ৯(নয়টি) মামলা বরগুনা সদর থানায় রুজু আছে বলে পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা মো. শাহাবউদ্দিন কালেরকন্ঠকে জানান। তিনি আরো জানান, ঘটনাটি রহস্য জনক মনে হচ্ছে । প্রতিপক্ষকে ফাঁসানোর কোন চক্রান্ত কিনা জানার জন্য কিশোরকে জিজ্ঞাসাবাদ করে প্রকৃত রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা করা হচ্ছে। তার সাথে শিশু হিসাবে আচরন করা হচ্ছে।#