মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি <>

দৈনিক কালের কণ্ঠ পত্রিকার আঞ্চলিক প্রতিনিধি ও আলোকচিত্রী  পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার বাসিন্দা সাংবাদিক দেবদাস মজুমদার এর ব্যাক্তিগত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক আইডি হ্যাকারের কবলে পড়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার (১/৮/২০১৯) দিনগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে কে বা কারা তার ব্যাক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে। এরপর থেকে আর তিনি তিনি তার ব্যাক্তি ফেসবুক আইডি লগইন করতে ব্যার্থ হন। rased raihan নামে এক হ্যাকার তার আইডি হ্যাক করে ওই অ্যাকাউন্টে একটি পোস্টও দেন । এদিকে সাংবাদিক দেবদাস মজুমদার তার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হ্যাক হওয়ার বিষয়ে মঠবাড়িয়া থানায় আজ শুক্রবার বিকালে একটি সাধারণ ডায়রি করেন (যার নম্বর-৮০, তারিখ-০২/০৮/ ২০১৯ )। এর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে হ্যাক হওয়া ফেসবুক একাউন্টটি সর্ম্পূণ ডিএকটিভ ( অকার্যকর ) করে রাখে সংশ্লিষ্ট হ্যাকার।

জানাগেছে, ২০০৯ সালে সাংবাদিক দেবদাস মজুমদার নিজের ইমেইল devdas_alokito@yahoo.com ও তার ব্যাক্তিগত মোবাইল নম্বর দিয়ে devdas majumder নামে একটি ভেরিফাইড ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলেন। তিনি তার সামাজিক যোগযোগা মাধ্যমে নিজের তোলা উপকূলের প্রাণ প্রকৃতি পরিবেশ ও জনমানুষের প্রায় সাড়ে ১২ হাজার ছবি আপলোড করেন। এছাড়া প্রায় শতাধিক ভিডিও ডকুমেন্টারী আপলোড করেন। তার ফেসবুক একাউন্টে ৫হাজার ফেন্ড লিস্ট ও ১০ হাজারেরও অধিক ফলোয়ার যুক্ত ছিল। এছাড়া ওই একই নামে তার একটি ফ্যানপেইজ ছিল। সম্পূর্ণ ভিন্ন ধারার তার এ ফেবুক একাউন্টটি বেশ জনমানুষের কাছে গ্রহণযোগ্য  ও জনপ্রিয় ছিল।

এ বিষয়টি নিশ্চিত করে সাংবাদিক দেবদাস মজুমদার বলেন, আমি উপকূলের জনমানুষের সুখ দু:খ, দৃশ্যকাব্য, পানিমূল উপকূলের মুখ, প্রাণ প্রকৃতি ও পরিবেশ ভাবনাসহ পত্র-পত্রিকায় আমার প্রকাশিত জনহিতকর প্রতিবেদন সামাজিক  মাধ্যমে তুলে ধরার চেষ্টা করতাম। নিজের তোলা ছবি নিয়মিত পোস্ট দিতাম। আমার ফেসবুক ফ্রেন্ড ও ফলোয়ারদের কাছে ছবি ও পোস্ট খুব গ্রহণযোগ্য ছিল। কিন্তু দুর্ভাগ্য রহস্যজনক কারনে আমার ফেসবুক অ্যাকান্টটি হ্যাকারের কবলে পড়ে। আমি ভিষণ ব্যাথিত । আমার ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি উপকূলের জনমানুষ, প্রাণ ও প্রকৃতির একটি আর্কাইভ হিসেবে গড়ে তোলা। সংশ্লিষ্ট হ্যাকার যদি আমার কস্ট বুঝতে পারেন কিংবা তিনি যদি মানবিক হন তাহলে হয়ত আমার শ্রম ও সাধনায় গড়ে তোলা একাউন্টটি তিনি ফিরিয়ে দিতে পারেন। আমি একাউন্টটি ফিরে পাওয়ার অনুরোধ জানাই।

 

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন