মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি🔹

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় গত কয়েক দিনের টানা বর্ষন ও অমাবশ্যার জোর প্রভাবে অস্বাভাবিক জোয়ারে চাপে উপজেলার মিরুখালী-ধানীসাফা সড়কের বিভিন্ন স্থানে পাকা সড়ক দেবে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। সম্প্রতি নির্মাণ সম্মপন্ন সওজের এ ৫ কিলোমিটার পাকা সড়কের পাঁচটি স্থানে খানাখন্দের সৃষ্টি হয়ে সড়কটি বেহাল হয়েছে পড়েছে। ফলে গত বুধবার থেকে উপজেলা সদর ও জেলা শহরের সাথে ৫ গ্রামের প্রায় ১০ হাজার মানুষের চলাচলসহ যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে পড়েছে। সেই সাথে ওই সড়ক সংশ্লিষ্ট কয়েকটি স্কুল-মাদ্রাসা সহ ইউনিয়ন বাজারে যাতায়তে দুর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি মিরুখালী ভায়া বাদুরা-সাফা ৫ কিলোমিটার সড়কটি সওজের অর্থায়নে নির্মান সম্পন্ন হয়। সড়কটি খাল সংলগ্ন হওয়ায় অস্বাভাবিক জোয়ারের চাপে হুমকির মুখে পড়ে। এলাকাবাসীর অভিযোগ সড়কটি দায়সারা ভাবে নির্মান করায় চলতি বর্ষা মৌসুমে সড়কের বিভিন্ন স্থানে খানা খন্দের সৃষ্টি হয়। এছাড়া ৪/৫ দিনের টানা ভারীবর্ষন ও সড়ক সংলগ্ন খালের অস্বাভাবিক জোয়ারের চাপে সড়কটি কয়েটি স্থান দেবে যায় । ফলে পাকা সড়কটি বড় বড় খানাখন্দের সৃষ্টি হয়ে সরাসরি যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। স্থানীয় গ্রামবাসীরা বিপর্যস্ত সড়কের স্থানে কলা গাছ ও সুপারি গাছ ফেলে চলাচল করছেন।

স্থানীয় অটো চালক মো. হাবিবুল্লাহ জানান, সড়কটি দায়সারাভাবে নির্মাণের ফলে চলতি বর্ষায় দেবে গিয়ে পিচ পাথর উঠে গেছে। এছাড়া বর্ষায় এসব স্থানে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এলাকাবাসী চাঁদা তুলে সুপারী গাছ দিয়ে রাস্তা মেরামত করেছে। তবে সড়কে কোন চালানো সম্ভব হচ্ছেনা।

স্থানীয় বেগম শেখ ফজিলাতুন্নেছা মহিলা কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আবুল কালাম বলেন, চলতি বর্ষা মৌসুমে পাকা সড়কটি বিপর্যস্ত হয়ে পড়ায় শিক্ষার্থীসহ এলাবাসী দুর্ভোাগ পোহাচ্ছেন। সড়কটি দ্রুত মেরামত না করলে আরও বিপর্যস্ত হয়ে পড়বে।

এ ব্যাপারে সওজের পিরোজপুর উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো.ওয়াহিদুজ্জামান সড়ক বেহাল হয়ে জনদুর্ভোগের কথা স্বীকার করে সাংবাদিকদের বলেন,বিপর্যস্ত সড়কটি চলাচলের জন্য জরুরী ভিত্তিতে মেরামতের ব্যবস্থা নেয় হবে।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন