ভান্ডারিয়া প্রতিনিধি  >>
ঈদের ছুটি শেষ তবু ঈদের আমেজ যেন কাটছে না পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় । দক্ষিণাঞ্চলের অন্যতম দৃষ্টি নন্দন বিনোদন পার্ক ভান্ডারিয়রা থানা পার্কে এখনও প্রতিদিন উপচে পড়া মানুষের ভিরে ঈদের আনন্দ এখনও ম্লান হয়নি। ভান্ডারিয়া উপজেলা সদরে ভান্ডারিয়া থানার সম্মূখ পোনা নদীর তীরে কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টিত ও অত্যন্ত মনোরম পরিবেশে পার্কটি ঘিরে প্রতিদিন মানুষের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠছে। বিনোদন প্রিয় মানুষ এ পার্কের মনোরম পরিবেশে এসে একটু আনন্দ উপভোগের জন্য আসছেন।
স্থানীয় জানাগেছে, দেশের যে কোন স্থান থেকে সড়ক ও নৌপথে সেখানে যাওয়া যায়। বরিশাল বিভাগীয় শহর থেকে মাত্র ৪৫ কি.মি. অদূরে ভান্ডারিয়া পৌর শহরের পোনা নদী তীরে পার্কটি অবস্থিত। বরিশাল রূপাতলী থেকে ঝালকাঠী হয়ে যাত্রীবাহী বাসে সেখানে যাওয়া যায়। পার্কের নতুন সংযোজন ট্রেন। এ ছাড়াও রয়েছে নাগর দোলা, দোলনা, চর্কা, টাওয়ার, বিভিন্ন ভাস্কর্য, নানা বর্ণিল লাইটিংসহ দৃষ্টিনন্দ স্থাপনা। পার্কটি নদী তীর ঘেঁেষ হওয়ায় এখানে পরিবেশ মনোমুগ্ধকর। পার্কে মুখরোচক খাবারসহ কফি হাউজ রেেছ। দর্শার্থীদের কথা মাথায় রেখে অত্যন্ত সূলভ মূল্যে খাবার পরিবেশন করা হয়। এ ছাড়াও পার্কে রয়েছে শিতাতপ নিয়ন্ত্রিত একটি অত্যাধুনিক রেষ্ট হাউজ।
বন পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের অধিনে বন অধিদপ্তর ইকো পার্কের আদলে প্রায় চার কোটি টাকা ব্যয়ে সাধারণ মানুষের বিনোদনের জন্য পার্কটি নির্মান করা হয়েছে। পরিবেশ ও বন মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু ২০১৪ সালে ৩ মে এ পার্কের নির্মাণ কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। দর্শনার্থীদের জন্য পার্কটিকে খোলা রেখেই এর নির্মান কাজ চলছে, ঈদউল ফিতর, ঈদ উল আযহাসহ ছুটির দিনগুলোতে দর্শণার্থীদের ভির বাড়ছে। উপকূলীয় প্রত্যন্ত অঞ্চল হতে বিনোদন বিলাসীরা এ পার্কে বন ভোজন, বিভিন্ন পার্টি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করছে । নদী তীরে রাতের পার্কটি আলোক সজ্জায় দৃষ্টিনন্দ শোভা বর্ধন করছে।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন