মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি >

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় অজ্ঞাত দুর্বত্তরা একটি মুরগীর খামারে গভীর রাতে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে। দুর্বৃত্তের আগুনে মুরগীর খামারটি সম্পূর্ণ ভস্মিভূত হয়। এতে খামারে থাকা দুই হাজার সোনালী জাতের মুরগী ও মুরগীর ছানা, ছয় হাজার ডিমসহ মজুদকৃত মুরগীর খাবার ও মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে যায়। আজ বৃহস্পতিবার ভোর রাতে মঠবাড়িয়ার বড়মাছুয় গ্রামের খামার মালিক প্রবাসি মো. বশীর হাওলাদারের বর্ণি-বর্ষা পোলট্রি ফার্মে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে দেয়। এতে ৮/৯ লাখ টাকার ক্ষতি সাধন হয় বলে ক্ষতিগ্রস্ত খামার মালিক দাবি করেছেন।

ক্ষতিগ্রস্ত খামার মালিক মো. বশীর হাওলাদার জানান, তিনি দীর্ঘদিন প্রবাস জীবনে থেকে দেশে ফিরে বেকারত্ব মোচনে গ্রামের বসত বাড়ি লাগোয়া তিনটি মুরগীর খামার গড়ে তোলেন। আজ বৃহস্পতিবার ভোর রাতে  পূর্ব শত্রুতার জের ধরে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা একটি খামারে আগুন ধরিয়ে দেয়। অগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে আগুন নেভাতে ব্যর্থ হয়। পরে খবর পেযে মঠবাড়িয়া ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে এক ঘন্টার চেষ্টা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে সম্পূর্ণ খামারটি পুড়ে ছাই হয়ে যায়।
ভস্মিভূত খামারে দুই হাজার সোনালী মুরগী ও ছয় হাজার ৩০০ ডিম ছিল। এছাড়া খামারে মজুদ করা খাবার ও অন্যান্য মালামাল ছিল। অগ্নিকান্ডে ওই খামার মালিকের আনুমানিক ৮/৯ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. কাইয়ূম হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মুরগীর সাথে এমন শত্রুতা দু:খজনক। খামার মালিক তিনটি খামার গড়ে স্বাবলম্বী হয়ে উঠছিলেন। আগুনে তাঁর অনেক ক্ষতি হয়ে গেল। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। পূর্ব শত্রুতার জের ধরেই এ নাশকতার ঘটনা ঘটেছে ।

এ ব্যাপারে মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইন চার্জ খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, খামারে আগুনের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় মঠবাড়িয়া থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করা হয়েছে। তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন