মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি >>

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার মিরুখালী উইনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি লাভলু তালুকদারকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে প্রতিপক্ষরা। শুক্রবার দিবাগত রাতে উপজেলার মিরুখালী ইউনিয়নের কাটাখালী বাজারে ওই ছাত্রলীগ নেতাকে স্থানীয় যুবলীগ নেতা শামীম হাওলাদার ও তার দলবল কুপিয়ে জখম করে।
এর আগে ওইদন বিকালে উপজেলার ভগিরথপুর বাজারে এক ব্যবসায়ীর দোকানের মালালুট ও ঘর ভাংচুর করে গুড়িয়ে দিয়ে ওই জমিতে দোকান নির্মাণের চেষ্টার সময় ছাত্রলীগ নেতা লাভলু বাঁধা দেওয়ায় এর জের ধরে প্রতিপক্ষরা তাকে কুপিয়ে আহত করে।

এ ঘটনায় আজ শনিবার সকালে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যাবসায়ি মো. ফজলুল হক বাদী হয়ে উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি শামিম হাওলাদার, স্থানীয় ইউপি সদস্য ছত্তার হাওলাদার, মুরাদসহ এজাহার নামীয় ৬জন ও অজ্ঞাতনামা ৪জনকে আসামী কওে একটি মামলা দায়ের করেন। এদিকে ওই উচ্ছেদ ও লুটপাট ঘটনার প্রতিবাদ করায় সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর যখম স্থানীয় মিরুখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি লাভলু তালকদারকে সংকটজনক অবস্থায় শুক্রবার রাতেই বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দোকান ঘর গুড়িয়ে দেওয়া,লুটপাট ও ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে আহত করার ঘটনায় স্থানীয় ব্যবসায়ীদের মাঝে আতঙ্ক ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। সেখানে সকল প্রকার সহিংসতা এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

মামলা ও এলাকাবাসী সূত্রে জানাযায়, উপজেলার ভগিরথপুর বাজারে ব্যবসায়ী ফজলুল হক জমাদ্দার ক্রয়কৃত জমিতে দোকান ঘর তুলে বিগত ২০বছর ধরে ভোগ দখল করে আসছিল। সম্প্রতি পার্শবর্তী ভান্ডারিয়ার সিংখালী গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে শামীম হাওলাদার ওই দোকান ঘরের জমি দখলের পায়তারা শুরু করে। ওই দোকানের ভাড়াটিয়া কসাই জাকিরকে দোকান ঘর থেকে নেমে যাবার জন্য বার বার চাপ দিয়ে আসছিল। এর জের ধরে শুক্রবার বিকেলে শামীম ও তার দলবল ব্যবসায়ী ফজলুল হকের দখলে থাকা দোকান ঘর ভাংচুর করে । এসময় ভাড়াটিয়া ব্যবসায়ী কসাই জাকিরের ফ্রিজ, ফ্রিজে রাখা মাছ, মাংশসহ প্রায় ১ লাখ টাকার মালামাল লুটে নেয়। যুবলীহ নেতা শামীম ও তার দলবল উচ্ছেদ হওয়া জমিতে ইট-বালু দিয়ে নতুন ঘর নির্মাণের চেষ্টা করে। এসময় ব্যাবসায়িকে উচ্ছেদ করে দোকান নির্মাণের প্রতিবাদ জানায় স্থানীয় ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি লাভলু তালুকদার । এর জের ধরে শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে আটটার দিকে যুবলীগ নেতা শামীম ও তার দলবল ছাত্রলীগ সভাপতি লাভলু তালুকদার স্থানীয় কাটাখালী বাজাওে আটকে দেশীয় ধারালো অস্ত্রদিয়ে মাথাসহ এলাপাথারী কুপিয়ে ও হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর যখম করে।
স্থানীয়রা আহত ওই ছাত্রলীগ নেতাকে উদ্ধার করে প্রথমে মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করার আশংকাজনক অবস্থায় তাকে বরিশাল শেওে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা শামীম হাওলাদার দোকান ঘরের ওই জমি তার দাদার ওয়ারিশ সূত্রে মালিক বলে দাবি করেন। ছাত্রলীগ নেতার ওপর হামলার বিষয় তিনি অস্বীকার করেন।

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ গোলাম ছরোয়ার জানান, দোকান ঘর গুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় থানায় মামলা নেয়া হয়েছে। আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। অপর দিকে ছাত্রলীগ নেতা আহতের ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। তিনি আরও জানান আইন-শৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে ঘটনাস্থলে সার্বক্ষনিক পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন