শুক্র. ফেব্রু ২১, ২০২০

আজকের মঠবাড়িয়া

সত্য প্রচারে সোচ্চার

মঠবাড়িয়ার সর্বসাধারণের কাছে প্রবীণ শিক্ষক নূর হোসাইন মোল্লার খোলা চিঠি

১১ সেপ্টেম্বর সাপলেজা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ মিছিল সম্পর্কে ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়া এবং ফেসবুকে প্রকাশিত সংবাদের প্রতি অামার দৃষ্টি অাকৃষ্ট হয়েছে। অামাকে জড়িয়ে যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে তাতে জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে। এ বিভ্রান্তি  দূরীকরণের জন্যে নিম্নে প্রকৃত ঘটনা পেশ করা হল।

মঠবাড়িয়া শহীদ গোলাম মোস্তফা খেলার মাঠে ৭ সেপ্টেম্বর গুলিশাখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং সাপলেজা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে ফুটবল খেলা চলাকালে মারপিট হওয়ায় গুলিশাখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৬ জন শিক্ষার্থী খেলোয়ার গুরুতর জখম হলে উক্ত বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ৮ সেপ্টেম্বর সাপলেজা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ক্রীড়া শিক্ষক, একজন ছাত্র, ৯ জন বহিরাগতসহ ১৩০-১৪০ জন অজ্ঞাত ব্যক্তিকে অাসামী করে মঠবাড়িয়া থানায় মামলা দায়ের করেন। মারপিটের বিচার চেয়ে গুলিশাখালী ইউনিয়নের মাধ্যমিক স্তরের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা ১০ সেপ্টেম্বর গুলিশাখালীতে মানববন্ধন করেছে। উক্ত মামলা প্রত্যাহার এবং মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইন চার্জ জনাব গোলাম সরোয়ারকে অপসারণের দাবি করে সাপলেজা ইউনিয়নের ৬ টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষর্থীরা মঠবাড়িয়া শহরে বিক্ষোভ মিছিল করার জন্যে ১১ সেপ্টেম্বর বেলা ১১ ঘটিকার পর উপজেলা পরিষদ কার্যালয় চত্বরে সমবেত হওয়ার বিষয়টি অামি জানতে পেয়ে তাৎক্ষনিক ভাবে উপজেলা পরিষদ কার্যালয় উপস্থিত হয়ে দেখতে পেলাম সাপলেজা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বক্তৃতা দিচ্ছেন।ওই সময় অাইন শৃখংলা বাহিনীর সদস্যগণ, সাংবাদিক বৃন্দ এবং কতিপয় অভিভাবক উপস্থিত ছিলেন। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, ভাইস-চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার,মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার প্রমূখ দাপ্তরিক কাজে মঠবাড়িয়ার বাহিরে থাকায় অামি দেশের প্রবীণ নাগরিক ও শিক্ষক সমিতির প্রধান উপদেষ্টা বিধায় বিক্ষোভকারী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য প্রদান করেছি। অামি অামার বক্তবে শিক্ষার্থীদেরকে বিক্ষোভ মিছিল না করে নীরবে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানে ফিরে যেতে উপদেশ দিয়েছি। সাথে সাথে তাদেরকে অাশ্বাস দিয়েছি যে, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার অফিসে অাসলে তাদের নেতৃত্বে উভয় প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকদ্বয়, সাপলেজা ও গুলিশাখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদ্বয় এবং গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সমন্বয়ে বিষয়টির সুষ্ঠুভাবে সমাধান দেওয়া হবে। অতপর শিক্ষার্থীরা নীরবে উপজেলা পরিষদ চত্বর ত্যাগ করে। পরবর্তীতে জানতে পেলাম শিক্ষার্থীরা মিছিল সহকারে কলেজ রোড হয়ে সাপলেজা ফিরে গিয়েছে।দয়া করে অাপনারা বিষয়টি অনুধাবন করবেন। বিষয়টি মিমাংসার প্রচেষ্টা চলছে। অাশা করি শীঘ্রই সমাধান হবে।

সবাই সুখে থাকুন, শান্তিতে থাকুন। অাল্লাহ হাফিজ।

> লেখক > অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক, গুলিসাখালী জিকে ইউনিয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় ।

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com