ব্রেকিং নিউজ
Home - উপকূল - ভাণ্ডারিয়ায় করোনা প্রতিরোধে মিরাজুল ইসলাম ওয়েলফেয়ার ফাউণ্ডেশনের সামাজিক উদ্যোগ

ভাণ্ডারিয়ায় করোনা প্রতিরোধে মিরাজুল ইসলাম ওয়েলফেয়ার ফাউণ্ডেশনের সামাজিক উদ্যোগ

ভাণ্ডারিয়া প্রতিনিধি <>

পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়ায় চলমান করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় স্থানীয় মিরাজুল ইসলাম ফাউণ্ডেশন জনহিতকর নানা সামাজিক উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। এ সামাজিক সংগঠনটির উদ্যোগ করোনা সংকটে জনবান্ধব উদ্যোগ বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।
উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয়দের সূত্রে জানাগেছে, ভাণ্ডারিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মিরাজুল ইসলাম ব্যক্তিগতভাবে করোনা মোকাবেলা নানা সরঞ্জামাদি বিতরণ, চিকিৎসা সহায়ক উপকরণ বিতরণসহ জনসচেতনতামূল নসানা কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে চলেছেন। চলমান করোনা সংকটে একজন জনপ্রতিনিধির এমন মহতী উদ্যোগ সর্বমহলে প্রশংসিত হয়েছে।
জানাগেছে, উপজেলা চেয়ার তাঁর সম্পূর্ণ নিজস্ব তহবিল হতে ভাণ্ডারিয়া পৌরশহরের ১০টি পয়েন্টে সাবান ও পানি দিয়ে হাত শহরবাসির হাত পরিস্কার পরিচ্ছন করার ব্যবস্থা করেছেন। প্রতিদিন এসব পয়েন্টে জনসাধারণ নির্বিঘ্নে দুই হাত পরিচ্ছন্ন রাখতে সক্ষম হচ্ছেন। সেই সাথে ১০ হাজার মাক্স সাধারণ মানুষের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে। পাঁচ হাজার ৫০ এমএল হ্যাণ্ড সেনিটাইজার বিনামূল্যে বিতরণ করেছেন। এছাড়া চিকিৎসকদের মাঝে ২৫০ পিপিআই বিতরণ, এক হাজার পিচ হ্যাণ্ড গ্লোবস, এক হাজার হেড ক্যাপ বিতরণ করা হয়েছে।এছাড়া শহরে প্রবেশমুখে ৭টি স্প্রে মেশিন দিয়ে জীবানু নাশক স্প্রে করা হচ্ছে।
ভাণ্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সূত্রে জানা গেছে, মিরাজুল ইসলাম ওয়েল ফেয়ার ফাউণ্ডেশন গুরুতর অসুস্থ রোগিকে দ্রুত উন্নত চিকিৎসা দিতে দুটি নতুন এ্যাম্বুলেন্স ক্রয় করে হাসপাতালে হস্তান্ত করেচেন। এছাড়া হাসপাতালে করোনার চিকিৎসা বিভিন্ন সরঞ্জামাদি ক্রয় বাবদ নগদ ১৩ লাখ টাকা অনুদান প্রদান করেছে।
হোম কোয়ারেন্টাইনের জন্য সরকারি কলেজের ছাত্রাবাসে প্রয়োজনীয় উপকরণ দিয়ে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সেই সাথে শহরের থানা পার্কের কটেজটিতে ৪ আইসোলেশন বেড স্থাপন করে আগাম প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।
করোনায় কর্মহীন দিনমজুরদের মাঝে মাথাপিছু ৫কেজি করে চাল ও নিত্যপ্রয়োজনী উপকরণ বিতরণ করা হচ্ছে।

ভাণ্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. এইচএম জহিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, করোনা মোকাবেলায় স্থানীয় মিরাজুল ইসলাম ফাউণ্ডেশন অভাবনীয় মহতী উদ্যোগ প্রশংসার দাবি রাখে। করোনা সংকট মোকালায় এমন উদ্যোগ জনবান্ধব।

এ বিষয়ে উদ্যোক্তা সংগঠন মিরাজুল ইসলাম ফাউণ্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা উপজেলা চেয়ারম্যান মিরাজুল ইসলাম বলেন, করোনা মোকাবেলায় আমাদের সকলের উচিত সচেতনভাবে কাজ করা। আমার ফাউণ্ডেশন হতে সংকট মোকাবেলায় প্রয়োজনে আরও জনহিতকর উদ্যোগ নেওয়া হবে।

Leave a Reply

x

Check Also

ছুটির পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালাতে হবে

অনলাইন ডেস্কঃ করোনাভাইরাসে কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে ছুটির পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো আবার চালু হলে আগের মতো পরিচালিত ...