সাদ্দাম-গাদ্দাফিতে নিরাপদ থাকতো মধ্যপ্রাচ্য : ট্রাম্প

সাদ্দাম-গাদ্দাফিতে নিরাপদ থাকতো মধ্যপ্রাচ্য : ট্রাম্প

by -
0 3
প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির মনোনয়নপ্রত্যাশী ডোনাল্ড ট্রাম্প

যুক্তরাষ্ট্রে মুসলমানদের প্রবেশে পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা জানিয়ে বিশ্বজুড়ে ধিকৃত হওয়ার পর ফের বিতর্কের ঝড় তুলেছেন যুক্তরাষ্ট্রের রিপাবলিক্যান প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প।

তিনি বলেছেন, ইরাকের সাদ্দাম হোসেনকে এবং লিবিয়াতে মুয়াম্মার গাদ্দাফিকে ক্ষমতা থেকে অপসারণ না করা হলে আজ মধ্যপ্রাচ্য অনেক নিরাপদ থাকতো। মধ্যপ্রাচ্যের আজকের পতনের জন্য হিলারি ক্লিনটন সবচেয়ে বেশি দায়ী বলে প্রকাশ্যে অভিযোগও তোলেন ট্রাম্প। এনবিসি নিউজের মিট দ্যা প্রেস অনুষ্ঠানে ফোনালাপে ট্রাম্প, প্রেসিডেন্ট ওবামার চেয়ে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিনকে অনেক স্মার্ট এবং ক্ষমতাশীল বলেও জানান ট্রাম্প। শনিবারের ডেমোক্রাট প্রার্থীদের ডিবেটে হিলা ক্লিনটন ট্রাম্পের বিরুদ্ধে আইএস’র শ্রেষ্ঠ দাতা হিসেবে অভিযোগ তোলার বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে, ট্রাম্প উল্টো হিলারিকেই দুষেন। তিনি বলেন, মধ্যপ্রাচ্যের হাজারো প্রাণহানী আর ধ্বংশ লিলার জন্য। ট্রাম্প বলেন, আজ মধ্যপ্রাচ্যে হাজার হাজার মানুষ মরেছে। লক্ষ্য মানুষ গৃহহীন হয়ে শরনার্থী হয়ে দেশ বিদেশে ছুটছে, হিলারীর ভুল মধ্যপ্রাচ্য রাজনীতির জন্য। এ প্রসঙ্গে, ট্রাম্প কে প্রশ্ন করা হয়, প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে সিরিয়াতে বাসার আল আসাদকে সমর্থন করবেন কিনা? ট্রাম্প জানান, আসাদ তুলনামূলক ভালো, কারণ অনেক মানুষ বিশ্বাস করে যুক্তরাষ্ট্র বিদ্রোহীদের সাহায্য করতে গিয়ে, আসলে আই এস কেই সাহায্য করছে। রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প তার দেয়া মুসলিম বিদ্বেষী বক্তব্য থেকে পুরোপুরি না সরে আসলেও এখন দাবী করছেন, অনেক মুসলিম স্কলার এখন তার সাথে একমত পোষন করে বলছেন, যে সমস্যার সুত্র খোঁজা দরকার। এবিসি নিউজের জনপ্রিয় একটি টিভি শোতে হাজির হয়ে ট্রাম্প বলেন, তার সাথে মুসলিম বা মধ্যপ্রাচ্যের কোন দ্বন্দ নেই। তিনি-ই একমাত্র রাজনীতিক যিনি ইরাক যুদ্ধ বা মধ্যপ্রাচ্যে যুক্তরাষ্ট্রের নীতি নিয়ে প্রকাশ্যে কথা বলে আসছেন। এবিসি নিউজের জনপ্রিয় টিভি শো উপস্থাপক, জিমি কিমেল এর অনুষ্ঠানে উপস্থাপক সম্প্রতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের ব্যাক্তিগত ডাক্তারের একটি শারিরীক ফিটনেস সনদ পড়ে শোনান, যেখানে ডাক্তার এর শারিরীক সক্ষমতা নিয়ে সত্যায়ন করছে যে, ট্রাম্পের কোন শারিরীক এবং মানষিক সমস্যা নেই, এবং নির্বাচিত হলে তিনিই হবেন সবচে সুস্থ প্রেসিডেন্ট। এই মশকরার একটা পর্যায়ে জিমি প্রশ্ন করেন, যে এ ধরনের কোন ডাক্তার বা শুভাকাঙ্খী তাকে যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিম প্রবেশ বন্ধের পরামর্শটাই দিয়েছিল কিনা! উত্তরে, রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প জানান, তার মুসলিম প্রবেশ সংক্রান্ত উক্তিটি অনেক মুসলিম বন্ধু প্রশংসা করেছেন এবং বলেছেন, আসলেই মুসলিমদের একটা বড় অংশ এখন বড় সমস্যা। প্রশ্ন ছিল, ধর্মীয় পরিচয়ে কাউকে দোষারোপ করাটা অবিচারের সমতুল্য কিনা? ট্রাম্প জবাব দেন, প্যারিসের হামলা তো আর সুইডেন এর নাগরিক করেনি। ট্রাম্প বলেন, আমিই একমাত্র ব্যাক্তি যে ইরাক আক্রমনের বিরোধি, মধ্যপ্রাচ্যে সরকার বদলানোর বিপক্ষে আমি। আমি বলেছিলাম, ইরাককে নিয়ে নেবে ইরান এবং সেটাই ঘটছে এখন, উপরুন্ত আইএস এখন সবার হুমকি হিসেবে এসেছে। এদিকে সিএনএন এর নির্বাচনী বিতর্কে অংশ নিয়ে প্রতিদ্বন্দী প্রার্থীদের নানা উক্তিতে ডোনাল্ড ট্রাম্প যেসব মুখভঙ্গি দেখিয়েছেন গত বুধবার, সেগুলি এখন গণমাধ্যমের আলোচনার খোরাক যোগাচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সহ নানা স্থানে এ নিয়ে চলছে বিস্তর মন্তব্য- প্রতিমন্তব্য।

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন