ফারুক হোসেন খান,কাঁঠালিয়া (ঝালকাঠি) প্রতিনিধি >
ঝালকাঠির কাঠালিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার আলহাজ্ব মো.ফারুক সিকদারের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকেল পাঁচটায় উপজেলা পরিষদ মাঠে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে রাস্ট্রীয় মর্যাদায় পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়েছে। শিল্পমন্ত্রি আলহাজ্ব আমির হোসেন আমু, সাংসদ বজলুল হক হারুন, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের উপ-সচিব খায়রুল ইসলাম মাননান, জেলা ও দায়রা জজ রমণী রঞ্জন চাকমা,পিরোজপুর জেলা ও দায়রা জজ গোলাম কিবরিয়া, ঝালকাঠি জেলা পরিষদ প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সরদার মো.শাহআলম, জেলা প্রশাসক মিজানুল হক চৌধুরী, পুলিশ সুপার সুভাস চন্দ্র সাহা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ডাঃ শরীফ মুহম্মদ ফয়েজুল আলম, সাবেক ইউএনও আবুল বাসার মুহম্মদ আমীর উদ্দীন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এমাদুল হক মনির, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাডভোকেট খান সাইফুল্লাহ পনির, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার এমএ বায়জীদ, ঝালকাঠি পৌর মেয়র লিয়াকত হোসেন তালুকদার, পিরোজপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আবদুল খালেক, বরগুনা সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আব্বাস উদ্দিন, রাজাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মনিরুজ্জামান, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিলন মাহমুদ, বাংলাদেশ আঞ্চলিক সংবাদপত্র পরিষদের কেন্দ্রিয় কমিটির মহা-সচিব দৈনিক শতকণ্ঠ পত্রিকার সম্পাদক জাহাঙ্গির হোসেন মনজু, বরগুনা আইনজীবি সমিতির সাবেক সাধারন সম্পাদক ও জেলা যুবলীগের সভাপতি কামরুল আহসান মহারাজ, কাঠালিয়া প্রেস ক্লাবের সভাপতি সিকদার মো.কাজল, সুজন সভাপতি অধ্যাপক আবদুল হালিম, সুজন সাধারন সম্পাদক ও প্রেস ক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি সাংবাদিক ফারুক হোসেন খান, ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া সিকদার, মাহমুদ হোসেন, এসএম আমিরুল ইসলম, কামরুজ্জামান নকিব লিটন, শিশির দাস, তফাজ্জল হোসেন (মানিক মিয়া) ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মাহতাব উদ্দিন, মনস্বিতা মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ একেএম কামরুজ্জামান, আমুয়া শহীদ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আবুল বসার বাদশা, মাওলানা খলিলুর রহমান নেছারাবাদীসহসহ হাজার হাজার মানুষ তার জানাজায় অংশ গ্রহন করেন।
গত বৃস্পতিবার সন্ধ্যা সারে ৭টায় স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭২ বছর। তিনি স্ত্রী দুই পূত্রসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন