আজকের মঠবাড়িয়া ডেস্ক >
কোরবানীর ছুটিতে আজ শনিবার রাতের গাড়িতে গ্রামের বাড়িতে ফেরার কথা ছিল শ্রমিক দুলালের। কিন্তু নিয়তির নির্মম পরিহাসে দুলাল বাড়িতে ফিরছেন নিথর হয়ে। চিরতরে বাড়িতে ফিরে আসছেন দুলাল । শোকার্ত স্বজনরা দুলালের মরদেহ বাড়িতে ফিরে আসার অপক্ষোয় । গাজীপুরের টঙ্গী বিসিক শিল্পনগরীতে অাজ শনিবার ১০ সেপ্টেম্বর সকালে টাম্পাকো ফয়লস লিমিটেড পলিপ্যাকেজিং নামে একটি টায়ার কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার আরিফ উল আমীন দুলাল আকন নামে এক শ্রমিক মর্মান্তিকভাবে নিহত হয়েছেন। নিহত দুলাল মঠবাড়িয়া উপজেলার ১১নম্বর বড়মাছুয়া ইউনিয়নের উত্তর বড়মাছুয়া গ্রামের নূরুল আমীন আকনের মেঝ ছেলে ও “মঠবাড়িয়ার কন্ঠ” অনলাইন পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক জুলফিকার আমীন সোহেলের আপন চাচাতো ভাই।
নিহতের স্পরিবার সূত্রে জানাগেছে, প্রতিদিনের ন্যায় দুলাল পৌনে ৬ টার দিকে ওই কারখানায় প্রবেশ করে। তার ডিউটি ছিল ৬ টায়। ঠিক ওই মুহুর্তে ৫তলা বিশিষ্ট ওই ভবনের কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এসময় দুলাল একটি দেওয়ালের নিচে চাঁপা পরে ঘটনাস্থলেই নিহত হন। হতভাগা দুলালের আজ শনিবার কোরবানীর ছুটিতে রাতের গাড়ীতে গ্রামের বাড়িতে আসার কথা ছিলো।
জানাগেছে, দুলাল তার স্ত্রী, ১ মেয়ে,২ ছেলে নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে গাজীপুর এলাকায় বসবাস করতেন। দুলালের মর্মান্তিক মৃত্যুর কথা শুনে বাড়িতে তার বৃদ্ধ মা-বাবা, ভাই-বোন ও আত্মীয়-স্বজন বার-বার মূর্ছা যাচ্ছেন।
নিহত দুলালের মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্ত সম্পন্ন শেষে মরাদেহ নিয়ে স্বজনরা গ্রামের বাড়িতে লাশ নিয়ে আসার অপেক্ষায় রয়েছেন স্বজনরা।
উল্লেখ্য আজ মনিবার ভোরে গাজীপুরের টঙ্গী বিসিক শিল্পনগরীতে টাম্পাকো ফয়লস লিমিটেডের পলিপ্যাকেজিং কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণে অগ্নিকাণ্ডে অন্তত ২৪ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে টঙ্গীতে ১৯ ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ৫ জনের মরদেহ রয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে কমপক্ষে ৭০ জন।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন