দেবদাস মজুমদার >>

দুরারোগ্য ক্যান্সার আক্রান্ত ফাতিমাকে বাঁচাতে কাল শিক্ষার্থীরা মানুষের দ্বারে নামবে। মঠবাড়িয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও সামাজিক উদ্যোক্তা জনাব আরিফ-উল-হক শিক্ষার্থীদের নিয়ে এমন মহতী উদ্যোগের কথা জানিয়েছেন। আমরা আশাবাদি মানবিক মানুষ সাড়া দিলে ক্যান্সারের সাথে লড়াইটা জিতে যাবে শিশু ফাতিমা। সে বাঁচবে, আবার সে নিয়মিত স্কুলে যাবে । সহপাঠিদের সাথে ছুটোছুটি করবে।

মঠবাড়িয়ার ৯ বছরের ফুটফুটে শিশু ফাতিমা দুরারোগ্য ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে এখন মৃত্যুপথযাত্রী। বাড়িতে শুয়ে-বসে দিন কাটছে তার। ফল বিক্রেতা বাবা হাবিবুর রহমান অর্থাভাবে শিশুটির সুচিকিৎসা করাতে পারছেন না। এ নিয়ে তাঁর পরিবারে দুঃখের শেষ নেই। তাই স্কুল পড়ুয়া মেয়ে ফাতিমাকে বাঁচাতে হৃদয়বান মানুষের প্রতি সহায়তার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া পৌর শহরের আরামবাগ মহল্লার হাবিবুর রহমানের মেয়ে ফাতিমা চলতি বছরের এপ্রিল মাসে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে। প্রথমে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে চিকিৎসকরা জানান, ফাতিমা দুরারোগ্য ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত। বর্তমানে খুলনা কিউর হোম জেনারেল হাসপাতালে ক্যান্সার বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মুকিতুল হুদার তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা চলছে তার। এরই মধ্যে তাকে তিনটি কেমো দেওয়া হয়েছে। কিন্তু দরিদ্র ওই পরিবারের পক্ষে এখন আর চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করা সম্ভব হচ্ছে না। ফাতিমার বাবা হাবিবুর রহমান জানান, তিনি শহরে মৌসুমি ফল বিক্রি করে সংসার চালান। ক্যান্সার আক্রান্ত মেয়ে ফাতিমার চিকিৎসার ব্যয় মেটাতে শেষ সম্বল পাঁচ কাঠা জমিও বিক্রি করে দিয়েছেন। এখন তিনি সর্বস্বান্ত। চিকিৎসকরা বলছেন, উন্নত চিকিৎসার জন্য ফাতিমার বোন মেরুতে অস্ত্রোপচার করা জরুরি। এ জন্য ৩৫ লাখ টাকার প্রয়োজন। তাই মেয়েকে বাঁচাতে হৃদয়বান মানুষের কাছে সহায়তার আকুতি জানিয়েছেন তিনি।

ফাতিমাকে বাঁচাতে মঠবাড়িয়া উপজেলা অাওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জনাব অারিফ-উল-হকের মহতী উদ্যোগকে স্বাগত জানাই।
সহযোগিতা ও ফাতিমার তথ্য সমন্বয়ের জন্য অারিফ-উল হকের সেলফোন নাম্বার – ০১৭১২ ৬৪ ৯৮ ৪৭ যোগাযাগের জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি ।
সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা : মেসার্স ফাতিমা স্টোরস, চলতি হিসাব নম্বর-১২২-২৪৬৯, উত্তরা ব্যাংক মঠবাড়িয়া শাখা, পিরোজপুর। মুঠোফোন নম্বর-০১৭৩১৪৪২৮৬২

আসুন আমরা সবাই মিলে শিশু ফাতিমার পাশে দাড়াই।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন