মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি >>

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া শাহিদা বেগম(৬০) নামে স্বামী পরিত্যাক্তা এক দৃষ্টি প্রতিবন্ধী বৃদ্ধার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ রোববার সকালে উপজেলার সাপলেজা ইউনিয়নের বাদুরতলী গ্রামে বাবার বাড়ি থেকে ওই বৃদ্ধার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে। পরিবারের দাবি প্রতিবেশী একজনের কাছে কিছু টাকা ধার দিয়ে না পেয়ে অভিমানে গলায় ফাঁস লাগিয়ে সে আত্মহত্যা করে।
নিহত ওই বৃদ্ধা বাদুরতলী গ্রামের মৃত হাতেম আলী গাজীর মেয়ে। সে স্বামী পরিত্যাক্তা হয়ে দীর্ঘ কয়েকবছর ধরে বাবার বাড়িতে আশ্রয়ে ছিল।

থানা ও স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার বাদুরতলী গ্রামের মৃত হাতেম আলীর দুই মেয়ে আমিনা বেগম ও নি:সন্তান দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শাহিদা বেগম স্বামী পরিত্যাক্তা হয়ে বাবার বাড়িতে একসাথে বসবাস করত। আজ রোববার ভোওে বড়বোন আমিনা বেগম ফজরের নামাজ শেষে ঘরের বাইরে যায়। কিছুক্ষণ পর ফিরে এসে ঘরের দরোজা বন্ধ ও বোন সাহিদার কোন সাড়া না পেয়ে প্রতিবেশীদের ডেকে আনে। পরে প্রতিবেশীরা ঘরের আড়ার সাথে ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে থানা পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থল হতে ওই বৃদ্ধার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে।

নিহত বৃদ্ধার বড়বোন আমিনা বেগম দাবি করেন, তার বোন প্রতিবেশী একজনকে বেশ কিছু টাকা ধার দেন। ওই টাকা ফেরত না দিয়ে নানা টালবাহানা শুরু করলে ছোটবোন শাহিদা বেশ কয়েকদিন ধরে ক্ষুব্দ ছিলেন। ধারের টাকা ফেরত না পেয়ে মনোকষ্টে তার বোন ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

এ বিষয়ে মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মোহাম্মদ মাজহারুল আমীন বিষয়টি নিশ্চিত কওে জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে।

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন