স্প্যানিশ কাপ থেকে ছিটকে পড়ার হতাশা কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই বার্সেলোনার মাঠে কঠিন পরীক্ষায় পড়তে যাচ্ছে আতলেতিকো মাদ্রিদ।

সাম্প্রতিক সময়ে রীতিমত অজেয় হয়ে ওঠা লুইস এনরিকের দলের বিপক্ষে মুখোমুখি লড়াইয়েও অনেক পিছিয়ে ২০১৩-১৪ মৌসুমের লিগ চ্যাম্পিয়নরা। লা লিগার দ্বিতীয় পর্বের এই ম্যাচে তাই ‘ফেভারিট’ হয়েই মাঠে নামতে যাচ্ছে কাতালুনিয়া দলটি।

কাম্প নউয়ে শনিবার বাংলাদেশ সময় রাত নয়টায় শুরু হবে লা লিগার গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটি।

এ ম্যাচে জিতলে এক ম্যাচ কম খেলে তিন পয়েন্টের ব্যবধানে লিগের শীর্ষে থাকবে বার্সেলোনা। শিরোপা লড়াইয়েও অনেকখানি এগিয়ে যাবে তারা। বর্তমানে এই দুদলের পয়েন্ট সমান ৪৮। তবে আতলেতিকোর চেয়ে এক ম্যাচ কম খেলেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।

নিজেদের দুর্দান্ত ফর্মের পাশাপাশি প্রতিপক্ষের সাম্প্রতিক ‘বাজে’ পারফরম্যান্সও বার্সেলোনার জয়ের সম্ভাবনা বাড়াচ্ছে। সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলে আট দিনের মধ্যে তিনটি ম্যাচ খেলে দুটিতে ড্র করেছে এবং একটিতে হেরেছে আতলেতিকো। সবশেষ গত বুধবার সেল্তা দি ভিগোর কাছে ঘরের মাঠে ৩-২ গোলে হেরে কোপা দেল রে থেকে ছিটকে পড়ে তারা।

বার্সেলোনা শিবিরের চিত্রটা ঠিক এর ভিন্ন; ‘এমএসএন’ নামে পরিচিত তারকা সমৃদ্ধ আক্রমণভাগের দাপটে যেকোনো প্রতিপক্ষের বিধ্বস্ত হওয়াটা যেন খুব স্বাভাবিক বিষয়ে পরিণত হয়েছে।

মাঝে টানা তিন ম্যাচে লিওনেল মেসি, নেইমার আর লুইস সুয়ারেস এক সঙ্গে খেলতে পারেননি। গত বুধবার একসঙ্গে ফিরেই পুরনো রূপে জ্বলে ওঠেন তারা। আতলেতিক বিলবাওয়ের বিপক্ষে শুরুতে পিছিয়ে পড়েও তাই শেষ পর্যন্ত বড় জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে দলটি। দ্বিতীয়ার্ধের তিন গোলে ৩-১ ব্যবধানে ম্যাচটি জেতে। একটি করে গোল করেন নেইমার, সুয়ারেস ও জেরার্দ পিকে।

Barca+2গত শনিবার মালাগার বিপক্ষে লিগ ম্যাচে চোটের কারণে খেলতে পারেননি নেইমার। তাই সুস্থ হয়ে ফিরেই নেইমারের গোলে ফেরা বার্সেলোনার জন্য অনেক বড় সুখবর। সুয়ারেস তো মৌসুমের শুরু থেকেই গোল করে চলেছেন; ১৮ গোল নিয়ে এখন পর্যন্ত লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা তিনি।

প্রতিপক্ষের গোলমুখে দারুণ ধারাবাহিক সুয়ারেস এ মৌসুমে এখন পর্যন্ত বার্সেলোনার হয়ে ৩০ ম্যাচে ৩০ গোল করেছেন। আর দলের সবচেয়ে বড় তারকা মেসি সবসময়ের মতো এখনও আছেন ছন্দে; শেষ তিন লিগ ম্যাচে পাঁচ গোল আর্জেন্টিনা অধিনায়কের।

দলের সেরা তারকাদের ফর্মে থাকার পাশাপাশি আতলেতিকোর সঙ্গে মুখোমুখি লড়াইয়ের পরিসংখ্যানও বার্সেলোনার জন্য প্রেরণার।

আতলেতিকোর বিপক্ষে লিগে সবশেষ ১১ ম্যাচে হারেনি বার্সেলোনা; ৯টিতে জিতেছে ও বাকি দুটি ড্র। ঘরের মাঠে শেষ ৯ বারের মুখোমুখি দেখায় ৭টি জিতেছে বার্সেলোনা, দুটি ম্যাচ হয়েছে ড্র।

সব মিলিয়ে বার্সেলোনা সমর্থকেরা আরেকটি জয়ের প্রত্যাশা করতেই পারে। তবে বরাবরের মতো আতলেতিকোর শারীরিক ফুটবল কিছুটা হলেও মেসি-নেইমারদের সামনে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করতে পারে।

Barca+3আতলেতিকোর মিডফিল্ডার গাবি এরনান্দেস স্প্যানিশ কাপ থেকে ছিটকে পড়ার হতাশা ভুলে কাম্প নউয়ে জয়ের লক্ষ্যে ঝাঁপিয়ে পড়তে চান।

সতীর্থদের উদ্দেশে তিনি বলেন, “(কোপা দেল রে থেকে ছিটকে পড়ার) ক্ষত সারানোর সেরা উপায় হলো শনিবারের ম্যাচ জেতা। আমাদের ভালো একটি ম্যাচ খেলতে হবে।”

প্রতিপক্ষের ঘরের মাঠে খেলার বাড়তি সুবিধার কথাও বললেন গাবি। তবে সেটা হিতে বিপরীত হতে পারে বলেও মনে করেন। উদাহরণ হিসেবে গত সেপ্টেম্বরে লিগের প্রথম পর্বের ম্যাচে কথা টানলেন, ওই ম্যাচে নিজেদের মাঠে ২-১ গোলে হেরে যায় আতলেতিকো।

“সবাই যেমন ভেবেছিল, ঘরের মাঠে আমরা ফেভারিট, তেমনি সবাই ভাববে বার্সেলোনা ফেভারিট। সেক্ষেত্রে হয়তো একইভাবে ঘটনাটা আমাদের পক্ষে ঘটবে।”

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন