ঢাকা: বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল) তৃতীয় আসরের ফাইনাল ম্যাচে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের দল বরিশাল বুলসকে শেষ ওভারের নাটকীয়তায় ৩ উইকেটে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হলো মাশরাফি বিন মুর্তজার দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। বুলসদের দেয়া ১৫৭ রানের জয়ের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে সাত উইকেট হারিয়ে শেষ বলে জয় নিশ্চিত করে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

এর ফলে মাশরাফি বিন মুর্তজার হাতে উঠলো হ্যাটট্টিক শিরোপা। গত দুই আসরে ঢাকা গ্লাডিয়েটরসের হয়ে শিরোপা জিতেছিলেন মাশরাফি। আর মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ পরপর দুইবার ফাইনাল খেলেও শিরোপা বঞ্চিত থাকলেন। গতবার ফাইনাল ম্যাচে ঢাকা গ্লাডিয়েটরসের বিরুদ্ধে চিটাগাং কিংসকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন তিনি।

এদিন শিরোপা জয়ের জন্য শেষ ওভারে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিলো ১৩ রান। তখন বোলিংয়ে ছিলেন পাকিস্তানি পেসার মোহাম্মদ সামি। ওভারের প্রথম বলে দুই রান নিতে গিয়ে রান আউট হন শুভাগত হোম।

দ্বিতীয় বলে সিঙ্গেল নেন কুলাসেকারা। তৃতীয় ও চতুর্থ বলে চার মারেন অলোক কাপালি। চতুর্থ বলে ২ রান নিয়ে স্কোর লেভেল করেন কাপালি। শেষ বলে সিঙ্গেল নিয়ে দলের শিরোপা নিশ্চিত করেন অলোক কাপালি। শেষ পর্যন্ত অলোক কাপালি ২৮ বল খেলে ৩৯ রানে অপরাজিত থাকেন।

এদিন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের পক্ষে ইমরুল কায়েস ৫৩, আহমেদ শেহজাদ ৩০ ও অলোক কাপালি ৩৯* রান করেন। বরিশালের পক্ষে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ২টি, কেভিন কুপার ২টি ও মোহাম্মদ সামি ১টি করে উইকেট নেন।

এদিন ইনিংসের তৃতীয় ওভারে মোহাম্মদ সামি নিজেরে বলে নিজেই ক্যাচ নিয়ে ফিরিয়ে দেন লিটন দাসকে। ১০ম ওভারে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের বলে রায়াদ এমরিতের হাতে ধরা পড়েন আহমেদ শেহজাদ।

১২তম ওভারে সাব্বিরের হাতে ক্যাচ বানিয়ে ইমরুল কায়েসকে ফেরান রিয়াদ। ১৬তম ওভারে রান আউট হয়ে ফেরেন আসহার জাইদি। ১৯তম ওভারের প্রথম বলে কেভিন কুপারের বলে তুলে মারতে গিয়ে সেকুগে প্রসন্নের হাতে ধরা পড়েন ড্যারেন স্টিভেন্স। দ্বিতীয় বলে মাশরাফি বিন মুর্তজাও বাতাসে ভাসিয়ে খেলেন। বলটি গিয়ে পড়ে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের হাতে। শেষ ওভারে রান আউট হন শুভাগত হোম।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৫৬ রান সংগ্রহ করে বরিশাল বুলস। দলের পক্ষে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ৪৮, শাহরিয়ার নাফিস ৪৪* ও সেকুগে প্রসন্ন ৩৩ রান করেন। কুমিল্লার পক্ষে মাশরাফি বিন মুর্তজা ১টি, নুয়ান কুলাসেকারা ১টি, আসহার জাইদি ১টি ও ড্যারেন স্টিভেন্স ১টি করে উইকেট নেন।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন