বিপিএলের তৃতীয় আসরের গ্র্যান্ড ফাইনালে কাল মুখোমুখি কুমিল্লা ও বরিশাল

২০১৫ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) টুয়েন্টি টুয়েন্টি ক্রিকেটের তৃতীয় আসরের গ্র্যান্ড ফাইনালে আগামীকাল মঙ্গলবার মুখোমুখি হবে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ও বরিশাল বুলস। মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় শুরু হবে বিপিএলের তৃতীয় আসরের ফাইনাল। কুমিল্লাকে নেতৃত্ব দেবেন জাতীয় দলের ওয়ানডে ও টি-২০ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা ও বরিশালের অধিনায়কত্ব করবেন জাতীয় দলের মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।
টুর্নামেন্ট শুরুর আগে কাগজে-কলমে সেরার কাতারে নাম ছিল না কুমিল্লা বা বরিশাল। কিন্তু টুর্নামেন্ট শুরুর পর থেকে সব হিসাব নিকাশকে পাল্টে দেয় কুমিল্লা ও বরিশাল। লিগ পর্বে দুর্দান্ত পারফরমেন্স করে শেষ চারে জায়গা করে নেয় দল দু’টি। ব্যাট-বল-ফিল্ডিং তিন বিভাগেই পারফরমেন্সের ঝলক দেখায় কুমিল্লা ও বরিশাল।

লীগ পর্বে ১০ ম্যাচে অংশ নিয়ে ৭ জয় ও ৩ হারে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে রান রেটে এগিয়ে থেকে সেরা দলের খেতাবটা পায় কুমিল্লা। ফলে প্রথম কোয়ালিফাইয়ারে সহজেই নাম লেখায় তারা। পয়েন্ট টেবিলে দ্বিতীয় দল হওয়া রংপুর রাইডার্স মুখোমুখি হয় কুমিল্লার।

লিগ পর্বে পারফরমেন্সের ফুলঝুড়ি ফোটানো কুমিল্লা, কোয়ালিফাইয়ারেও দুরন্ত ছিলো। রংপুরকে ৭২ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে প্রথম দল ও প্রথম আসরে খেলতে নেমেই ফাইনালে উঠে কুমিল্লা। হেরে গেলে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় হয়নি রংপুরের। কারণ টুর্নামেন্টে নিয়মনুযায়ী প্রথম কোয়ালিফাইয়ারে হেরে যাওয়া দলটি লড়বে এলিমিনিটরে উঠা দলের সাথে।

কুমিল্লা ও রংপুরের মতো ১৪ পয়েন্ট সংগ্রহ করে বরিশাল। কিন্তু রান রেটে পিছিয়ে থাকায় লিগ পর্বে তৃতীয় হয় বরিশাল। ফলে এলিমিনিটরে খেলতে হয় বরিশালকে। সেখানে তারা প্রতিপক্ষ হিসেবে পায় ঢাকা ডায়নামাইটসকে। লীগ পর্বে ১০ ম্যাচ থেকে ৮ পয়েন্ট পায় ঢাকা।

এলিমিনিটরে লড়াইটা সমানতালেও করেছিলো বরিশাল ও ঢাকা। কিন্তু বরিশাল বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিং-এ ম্যাচ হেরে বসে ঢাকা। ফলে এলিমিনিটরের বিজয়ী দল হিসেবে দ্বিতীয় কোয়ালিফাইয়ারে রংপুরের প্রতিপক্ষ হয় বরিশাল।

এলিমিনিটরে শুরুতেই বড়সড় ধাক্কা নিয়েই খেলতে নামতে হয় বরিশালকে। দলের সেরা তারকা ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিস গেইলকে ছাড়া খেলতে নামে তারা। কিন্তু গেইলের অভাবটা বুঝতে দেননি সাব্বির রহমান। রংপুরের ছুঁেড় দেয়া ১৬১ রানের টার্গেট সাব্বিরের দৃঢ়তায় ছুঁয়ে ফেলে বরিশাল। সাব্বিরের পাশাপাশি দলের জয়ে অবদান রেখেছেন শাহরিয়ার নাফীসও। তার ৪৪ রানের ইনিংস মূল্যবান হলে, সাব্বিরের ৭৯ রান ছিলো মহা-মূল্যবান। তাতে ৫ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয় বরিশাল। সেই সাথে দ্বিতীবারের মতো বিপিএলের ফাইনালে নাম লেখায় বরিশাল বুলস।

এর আগে প্রথম আসরের ফাইনালে উঠেছিলো বরিশাল বার্নাস। ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্সের বিপক্ষে ঐ ফাইনালের লড়াইয়ে ৮ উইকেটে হারে বরিশাল। শুধুমাত্র প্রথম আসরেই নয়, দ্বিতীয় আসরের শিরোপা জিতে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স। চট্টগ্রাম কিংসকে দ্বিতীয় আসরে ৪৩ রানে হারায় ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স।

বিপিএলের তৃতীয় আসরের ফাইনালে মুখোমুখি হবার আগে বরিশালের চেয়ে কিছুটা হলেও এগিয়ে থাকবে কুমিল্লা। কারণ লিগ পর্বে দু’বারের মুখোমুখিতে সহজ জয়ের স্বাদ পেয়েছে কুমিল্লা। লিগ পর্বের প্রথম ম্যাচে ৮ উইকেটে এবং ফিরতি পর্বে ৭ উইকেটে ম্যাচ জিতে কুমিল্লা।

বিপিএলের রোল অব অনার :
বছর চ্যাম্পিয়ন রানার্স-আপ ফলাফল ভেন্যু
২০১২ ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স বরিশাল বানার্স ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স ৮ উইকেটে জয়ী মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়াম
২০১৩ ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স চট্টগ্রাম কিংস ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স ৪৩ রানে জয়ী মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়াম।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন