দেবদাস মজুমদার > পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার ৪৯টি প্রাথমিক বিদ্যালয় দীর্ঘ দিন প্রধান শিক্ষকের পদ শূণ্য। সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়গুলো ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক দিয়ে শিক্ষা কার্যক্রম চলছে। এতে বিদ্যালয়গুলোর পাঠদানসহ প্রশাসনিক কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। এসব প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২-৩ বছর ধরে প্রধান শিকের পদ শূণ্য। এ ছাড়া ৫৫ জন সহকারী শিক্ষকের পদও শূণ্য রয়েছে। ফলে সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয় গুলোতে পাঠাদানসহ শিক্ষা কার্যক্রম বিঘ্ন ঘটছে।
উপজেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানাগেছে, মঠবাড়িয়া উপজেলার ১১ ইউনিয়নে ২০৫টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে ৪৯টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিকের পদ শুন্য। এছাড়া ৫৫টি সহকারী শিকের পদ দীর্ঘ দিন ধরে শূন্য আছে।
প্রধান শিক না থাকায় বিদ্যালয়ের সহকারী শিকরাই ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিকের দায়িত্ব¡ পালন করতে হচ্ছে। তবে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিকরা দাপ্তরিক কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকায় বিদ্যালয়ের পাঠদানে অন্য শিকদের বাড়তি পাঠদান করতে হচ্ছে।
এ ব্যাপারে উপজেলার ৮১ নম্বর উলুবাড়িয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক বাপ্পী বিশ্বাস বলেন, বিদ্যালয়ে ২০১১ সাল থেকে প্রধান শিক্ষকের পদ খালি। এ ছাড়া বিদ্যালয়ে ৫জন শিক্ষকের স্থলে শিক্ষক আছেন তিনজন। আমাকে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে। এ কারনে প্রশাসনিক কাজে ব্যস্ত থাকতে হয়। ফলে দুইজন শিক্ষক নিয়মিত পাঠদানে হিমসিম খাচ্ছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির আহবায়ক মো. আবু জাফর জানান, প্রধান শিক ছাড়া বিদ্যালয়ের শিার মান ও প্রশাসনিক কার্যক্রম ঠিক রাখা অসম্ভব। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কমিটির সভায় এ বিষয় একাধিকবার বলা হয়েছে।

উপজেলা প্রাথমিক শিা কর্মকর্তা রুহুল আমীন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ৪৯টি বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদ খালি। ফলে এসব বিদ্যালয়ে প্রশাসনিক কাজ চলছে ভারপ্রাপ্ত একজন সহকারী শিক্ষক দিয়ে। এতে সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ে নির্বিঘ্ন পাঠদানে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে। শিক্ষক সংকটের বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপকে লিখিতভাবে অবহিত করা হয়েছে।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন