নারায়ণগঞ্জ আড়াইহাজারে ডাকাত সন্দেহে জনতা ধরে গণপিটুনি দিলে ৮ জন নিহত ও অন্তত চারজন আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার ভোরে উপজেলার সাতগ্রাম ইউনিয়নের পুরিন্দা বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এছাড়া ময়মনসিংহে বিএনপি নেতাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। নারায়ণগঞ্জের সহকারী পুলিশ সুপার (বি সার্কেল) মো. জহিরুল ইসলাম দুপুরে বলেন, গণপিটুনিতে ঘটনাস্থলে সাতজন এবং হাসপাতালে আরেকজন মারা যায়। তিনি বলেন, আহত চারজনের মধ্যে তিনজনের অবস্থা গুরুতর। পুলিশের প্রহরায় তাদের হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। আরেকজনকে থানায় রাখা হয়েছে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জেলা পুলিশ সুপার ড. খ. মহিদ উদ্দিন বলেন, আহত অবস্থায় আটক ব্যক্তিরা পুলিশকে জানিয়েছে, তারা সংঘবদ্ধ ডাকাতদলের সদস্য। তাদের দলে অন্তত ২৫ জন ছিল। তাদের দলনেতার বাড়ি ময়মনসিংহ অঞ্চলে। এদিকে, আড়াইহাজার থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আরিফুর রহমান জানিয়েছেন, গণপিটুনিতে নিহত আটজনের মধ্যে চারজনের পরিচয় সনাক্ত করা হয়েছে। এছাড়া আহত চারজনেরও পরিচয় পাওয়া গেছে।

পরিচয় সনাক্ত হওয়া নিহতরা হলেন— ময়মনসিংহ জেলার মধ্যপাড়া গ্রামের শওকত (৩০), রুবেল (২৮), জুয়েল ওরফে টিটু (৩২) ও নোয়াখালী জেলার রাজীব ওরফে রনি (৩৫)। আর আহতরা হলেন— মানিক (২৫), লোকমান (২৮), সজীব (২৭) ও সাব্বির (২২)। নিহত ও আহতদের সঙ্গে থাকা মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে এই পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তা আরিফুর রহমান। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, ভোরে ডাকাতদল পুরিন্দা বাজারের একটি চালের দোকানে ডাকাতি করতে যায়। এ সময় তারা ধারাল অস্ত্রের মুখে বাজারের নিরাপত্তা-প্রহরী জামান ও মোতালেবের হাত-পা-মুখ বেঁধে ফেলে। পরে তারা গফুর ভূঁইয়ার চালের আড়তের তালা ভাঙে। আড়ত থেকে তারা ট্রাকে চাল তুলতে থাকে। এক পর্যায়ে জামান তার বাঁধন খুলতে সক্ষম হন। তিনি পালিয়ে গিয়ে স্থানীয় লোকজনকে ডাকাতির খবর দেন।

পুরিন্দা বাজার জামে মসজিদের মাইকে এই তথ্য ঘোষণা করা হয়। ঘোষণা শুনে এলাকার লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ডাকাতদের ঘেরাও করে ১২ জনকে ধরে গণপিটুনি দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই সাত ডাকাত মারা যান। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করে এবং আহত পাঁজজনকে আড়াইহাজার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরো একজন মারা যান।

আহতদের তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে। পুলিশ লাশগুলো উদ্ধার করে তার সুরতহাল করেছে। আর সন্দেহভাজন ডাকাতদের ব্যবহার করা ট্রাকটি (ঢাকা মেট্রো-ট-১৮-৪৩১১) জব্দ করা হয়েছে। পুরিন্দা বাজারটি ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে অবস্থিত। বাজারে কয়েকশ’ দোকান আছে। ডাকাত ও গণপিটুনির খবর শুনে শ’ শ’ লোক পুরিন্দা বাজার ও আশপাশের এলাকায় ভিড় করে। ময়মনসিংহে বিএনপি নেতাকে পিটিয়ে হত্যাঃ ময়মনসিংহের ত্রিশালে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিএনপি নেতা এনামুল হক চাঁন মিয়াকে পিটিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষরা। এ ঘটনায় আরো ২জন গুরুতর আহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে এ ঘটনা ঘটে। তাদেরকে আশংকাজনক অবস্থায় ময়মনসিংহ কমিউনিটি বেজড মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, উপজেলার ধানীখোলা ইউনিয়নের মধ্যভাটিপাড়া ডামের মোড় এলাকায় পল্লী বিদ্যুতের লাইনের সংযোগ দিতে বিদ্যুতের লাইনম্যান খুঁটিতে উঠেন। খুঁটিতে উঠার সময় একটি চারা গাছের মাথা ভেঙ্গে যায়। পরে এ নিয়ে স্থানীয় আত্তস আলীর ছেলে ফজল মিয়া ধানীখোলা ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক চাঁন মিয়ার ভাতিজা মতিউর রহমান পারভেজকে মারধর করে। এরপর উভয়ের মধ্যে সমঝোতা হলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। পরে বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে আত্তস আলীর ছেলে ফজল মিয়া তাদের পক্ষের ২০/২৫জন লোকসহ লাঠি ও বাঁশ নিয়ে ধানীখোলা ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক চান মিয়ার বাড়ীতে হামলা করে।

এ সময় হামলাকারীরা এনামুল হক চাঁন মিয়াকে বাঁশ দিয়ে দিয়ে পিটায় ও মাথায় আঘাত করলে সে গুরুতর আহত হয়। গুরুতর আহত চাঁন মিয়াকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ময়মনসিংহ কমিউনিটি বেজড মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় ধানীখোলা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজ ও নিহতের ভাতিজা মতিউর রহমান পারভেজও গুরুতর আহত হয়েছেন। তাদেরকেও ময়মনসিংহ কমিউনিটি বেজড মেডিকেল কলেজ হাপসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ত্রিশাল থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক হাফিজ জানান, ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ফজল মিয়া নামে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে হত্যা মামলা হবে বলে জানান তিনি।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন