ছবিঃ ( প্রতিকি )

মঠবাড়িয়ায় পুকুর পাড়ের খড়ের গাদার পাশে নিয়ে এক স্কুল ছাত্রী ও এক কিশোরীকে জোর করে ধর্ষণ এবং ধর্ষণের চিত্র মুঠোফোনে ধারণ করার অভিযোগে দুই বখাটে ও এক বৃদ্ধের বিরুদ্ধে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে মঠবাড়িয়া থানায় মামলা হয়েছে।
এঘটনায় স্কুল ছাত্রীর বিধবা মা থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ হাবিব হাওলাদার(৫৫) নামের এক বৃদ্ধকে গ্রেফতার করেছে। ধর্ষিতা দুই কিশোরীকে ডাক্তারী জন্য পরীক্ষায় জন্য শুক্রবার জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে।
মামলা সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার উত্তর মিঠাখালী গ্রামের হতদরিদ্র ওই বাদী গত ১৫ ডিসেম্বর তার স্কুল পড়–য়া মেয়ে ও তার চাচাতো বোনের মেয়েকে বাড়িতে রেখে অসুস্থ ছেলেকে দেখতে চট্টগ্রামে যায়। পরবর্তীতে গত ১৭ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় একই এলাকার স্কুল ছাত্রীর মামাতো ভাই বখাটে ইব্রাহীম হাওলাদার(১৮) ও তার সহযোগী ইয়াসিন বেপারী(১৮) ফুঁসলিয়ে নিয়ে আসামী হাবিব হাওলাদারের পুকুরের পাশের খড়ের গাদার পাশে নিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে।
এসময় হাবিব হাওলাদার (৫৫) নামের ওই বৃদ্ধ ধর্ষণের চিত্র মুঠোফোনে ধারণ করে। বখাটে ইব্রাহীম হাওলাদার উত্তর মিঠাখালী গ্রামের সোবাহান হাওলাদারের ছেলে ও ইয়াসিন বেপারী একই এলাকার কালাম বেপারীর ছেলে।
পরের দিন শুক্রবার সকালে বৃদ্ধ হাবিব হাওলাদার তার স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে ধর্ষণের চিত্র ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ওই কিশোরীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এসময় ওই কিশোরী ডাকচিৎকার দিলে লোকজন ছুটে এলে হাবিব পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে উক্ত ঘটনা জানতে পেরে স্কুল ছাত্রীর বিধবা মা চট্টগ্রাম থেকে বাড়িতে এসে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন এবং পর্নোগ্রাফি আইনে দুই বখাটেসহ ৩জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করলে পুলিশ বৃদ্ধ হাবিবকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করেছে।
মঠবাড়িয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক নাসির উদ্দিন জানান, দুই কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় বৃদ্ধ হাবিবকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। অপর দুই বখাটেকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন