রবি. জানু ২৬, ২০২০

আজকের মঠবাড়িয়া

সত্য প্রচারে সোচ্চার

পিরোজপুরে পেঁয়াজের দাম এক লাফে ২৫০ টাকা

 

পিরেজপুর প্রতিনিধি <>
পিরোজপুর বাজারে পেঁয়াজের দাম লাগামহীন পর্যায়ে পৌঁছেছে। শুক্রবার পৌর বাজারের বিভিন্ন দোকানে ২৩০ থেকে ২৫০ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি হতে দেখা যায়। বৃহস্পতিবার সকালের দিকে বাজারে ১৬০ টাকা কেজিতে পেয়াজ বিক্রি হলেও বিকেলের পরে তা একলাফে ২০০ টাকায় চলে যায়। এবং শুক্রবার সেই একই পেঁয়াজ কেজি প্রতি ২৩০ টাকা থেকে ২৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। সরকার পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে বার বার উদ্যোগ নেওয়ার ঘোষণা দিলেও, কোন অবস্থাতেই দাম নিয়ন্ত্রণে আসছে না। পেঁয়াজের এই অস্বাভাবিক দাম নিয়ে চরম অসন্তোষ আর ক্ষোভ বিরাজ করছে ক্রেতা ও বিক্রেতাদের মধ্যে।
এদিকে, একেক দোকানে একেক রকম দামে কেন পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে এবং দামে হেরফের এর কোন সন্তোষ জনক জবাব মুদি ব্যবসায়ীরা দিতে পারেননি। গত দুই দিনে এ দাম ১৫০ টাকা থেকে একলাফে ২৩০ টাকায় পৌঁছানোর কারণ জানতে চাইলে মুদি ব্যবসায়ীরা জানান, খুলনার পাইকারী মোকামে প্রতিদিনই পেঁয়াজের দাম লাফিয়ে লাফিয়ে বৃদ্ধি পাওয়ায় খুচরা দামে তার প্রভাব পড়ছে।
বাজারের মুদি ব্যবসায়ী স্বপন পাল জানান, যেখানে প্রায় প্রতিদিন খুলনা পাইকারী মোকাম থেকে ১০০ বস্তা পেঁয়াজ আসতো, সেখানে এখন ৫ বস্তাও আসেনা। কারন জানতে চাইলে তিনি বলেন, কখন দাম বাড়ে আবার দেখা যাবে দুম করে কখন দাম পড়ে গেছে, এই ভয়ে ব্যবসায়ীরা কম করে পেঁয়াজ আনছেন।
ব্যবসায়ী স্বপন পাল ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, বিদেশ থেকে জাহাজে করে পেঁয়াজ আমদানী করার খবর প্রচার করা হলেও সে পেঁয়াজ দেশের কোন বাজারে বিক্রি হচ্ছে তার হদিস পাওয়া যায় না। প্রতিবেশী দেশ ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানীর পর তার প্রভাবও খুচরা বাজারে নেই। স্বপন আরও বলেন এ ভাবে চলতে থাকলে দু/একদিনে পেঁয়াজের দাম ৩ শত টাকা ছাড়িয়ে যাবে।

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com