পিরোজপুর প্রতিনিধি >>
পিরোজপুরের তিনটি আসনে  একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পন্ন হয়েছে। আজ রবিবার সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়ে বিকাল ৪টা পর্যন্ত জেলার তিনটি আসনেই শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোটাররা তাদের ভোট প্রদান করেন।পিরোজপুর-১ (পিরোজপুর-নাজিরপুর-নেছারাবাদ) আসনে ৬জন প্রার্থী প্রতিদন্দ্বিতা করলেও বেশ কয়েকটি কেন্দ্র ঘুরে দেখা গেছে একমাত্র নৌকা ও লাঙ্গল প্রতিকের এজেন্ট ছাড়া অন্য কোন প্রার্থীর এজেন্ট ছিল না। প্রথম থেকেই ২০ দলীয় জোটের প্রার্থী জামায়াতের শামীম সাঈদী কে স্থানীয় বিএনপি প্রত্যাখ্যান করায় তার দলের কোন প্রচার প্রচারনা ছিল না। সে কারনে নির্বাচনের দিনও কোন কেন্দ্রে তাদের কোন এজেন্ট,এমনকি তাদের কোন কর্মী-সমর্থককে দেখা যায় নাই। এমন নির্বাচনের দিনও নিজ নির্বাচনী এলাকায়ও দেখা যায়নি ২০ দলীয় জোটের প্রার্থী জামায়াতের শামীম সাঈদী কে।
এদিকে পিরোজপুর-১ আসনের নৌকার প্রার্থী কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক শ ম রেজাউল করিম সকালে নিজ এলাকা নাজিরপুরের তারাবুনিয়া কেন্দ্রে ভোট প্রদান করেন এবং দিনভর বিভিন্ন কেন্দ্রে ভোটারদের সাথে শুভেচছা বিনিময় করেন।
পিরোজপুর-২ ( ভান্ডারিয়া-কাউখালী-ইন্দুরকানী) আসনের মহাজোটের প্রার্থী জাতীয়পার্টির (জেপি)র চেয়ারম্যান ও পানি সম্পদমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু ভান্ডারিয়ার মজিদা বেগম মহিলা কলেজ কেন্দ্রে ভোট প্রদান করেন।
পিরোজপুর-৩ ( মঠবাড়িয়া) আসনে শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন সম্পন্ন হলেও বিএনপি দলীয় প্রার্থী উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক রুহুল আমিন দুলাল সকালে ও বিকালে  দুই দফায় সংবাদ সম্মেলন করে ভোট কারচুপির অভিযোগ করেন। ধানের শীষ প্রতীকের  এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়াসহ ভোট কারচুপির অভিযোগ  এনে পূনঃ নির্বাচনের দাবি জানান। এ আসনে মহাজোটের প্রার্থী জাতীয় পার্টির রুস্তম আলী ফরাজী সকালে মঠবাড়িয়ার কে এম লতিফ ইনস্টিটিউশন কেন্দ্রে ভোট প্রদান করেন।
জেলা প্রশাসক ও জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন ও জেলা পুলিশ সুপার মো. সালাম কবির জানান, জেলার তিনটি আসনেই শান্তিপূর্ণ ভাবে নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। কোথাও কোন অপ্রিতিকর ঘটনা ঘটেনি।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন