এবারই আমি প্রথম ভোটার হলাম তাই মনে অনেক উদ্দীপনা অনুভব করছি। নতুন ভোটারের অনুভূতি ঠিক যেন ঈদ-পূজোর মতো আনন্দের। এই অভিব্যক্তি ভাষায় প্রকাশ করতে গিয়ে এটা স্বীকার করতে হচ্ছে যে, ভেতরে ভেতরে একটা অন্যরকম উৎকন্ঠাও অনুভব করছি। ভোট নির্বিঘেœ দিতে পারবো তো?
ছোটবেলায় পরিবার ও মহল্লার ভোটারদেরকে ভোট প্রদানের জন্য যেতে দেখতাম। তখন ভেতরে ভেতরে ভোট না দিতে পারার একটা আক্ষেপ কাজ করতো। আক্ষেপ কাটানোর সময় এলো। নতুন ভোটার হিসেবে এবারই প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোট প্রদান করবো, এটা ভাবতেই আনন্দ লাগছে।

একজন সাধারণ ভোটার হিসেবে আমি আমার ভোটটি এমন একজনকে প্রদান করবো যিনি জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হয়ে দেশ ও জাতির মঙ্গলার্থে কাজ করবেন। শিক্ষা সাহিত্য ও আপন সংস্কৃতিসহ সকল সামাজিক উন্নয়নের জন্য কাজ করবেন। সেই সাথে জনপদের কাঁচা পথ-ঘাট পাঁকা করণ, পুল নির্মাণ ও মেরামত, ভাঙ্গা সড়ক সংস্কারসহ জনগুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে নজর দেবেন।
বুদ্ধিবাদি তারুণ্যও অগ্রযাত্রা প্রাধান্য দিয়ে যিনি দেশকে এগিয়ে নিতে যিনি প্রতিশুতিশীল। তথ্য-প্রযুক্তির উত্তরণের এই সময়ে বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে প্রযুক্তির সাথে জনগণের পথচলাকে সুগম করার সুব্যবস্থা করবেন। বেকার তরুণ জনগোষ্ঠীর জন্য কর্মক্ষেত্র তৈরীতে সচেষ্ট হবেন। তারুণ্যের শক্তিকে কাজে লাগবেন। জয় লাভের পর প্রতিজ্ঞা রক্ষার্থে কাজ করবেন। সর্বপরি তিনি তাঁর দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতন হবেন এবং জনগণের মঙ্গলার্থে তা পালন করবেন এমন আশায়ই এবার প্রথম ভোট কেন্দ্রে নির্বিঘেœ যেতে চাই।

মেহেদী হাসান
কবি ও পাঠাগার আন্দোলন কর্মী
মঠবাড়িয়া,পিরোজপুর।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন