বিশেষ প্রতিনিধি >>

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার দক্ষিণ গুলিসাখালী গ্রামের সদ্য নির্মাণ সম্পন্ন  বৃত্তিমূলক আবাসিক মহিলা প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। রবিবার সকালে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষ থেকে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি এম.পি ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে এ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের উদ্বোধন করেন।  এসময় পিরোজপুর-৩ আসনের এমপি ডা. মোঃ রুস্তুম আলী ফরাজী উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনের সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন , মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নাছিমা বেগম এনডিসি, অতিরিক্ত সচিব মাহমুদা শারমীন বেনু, জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান মমতাজ বেগম এ্যাডভোকেট, জাতীয় মহিলা সংস্থার নির্বাহী পরিচালক বেগম জাহানারা পারভীন, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কাজী রওশন আক্তার প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে নারায়নগঞ্জের আড়াইহাজার, নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী এবং মঠবাড়িয়ার উপজেলায় তিনটি বৃত্তিমূলক আবাসিক মহিলা প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের শুভ উদ্বোন করেন। এসময় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়েছেন নারায়নগঞ্জের আড়াই হাজারের এম.পি. নজরুল ইসলাম বাবু প্রমূখ।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রথান অতিথির বক্তৃতায় প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশ যে ডিজিটাল হয়েছে তার প্রমাণ হল আজকের এই ভিডিও কনফারেন্স। যদি পৃথক ভাবে তিনটি ট্রেনিং সেন্টার উদ্বোধন করা হতো তাহলে তিন দিন সময় লাগত এবং অনেক অর্থ ব্যয় হত। কিন্তু আমরা দুই ঘন্টার মধ্যে দেশের প্রত্যান্ত তিনটি উপজেলায় তিনটি ট্রেনিং সেন্টার উদ্বোধন করলাম।

উল্লেখ্য মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীন মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর ২০১৫ সালে জানুয়ারী মাসে ৫২ কোটি ৪৯ লক্ষ টাকা ব্যয়ে কালীগঞ্জ, আড়াইহাজার, সোনাইমুড়ী ও মঠবাড়ীয়া উপজেলায় ট্রেনিং সেন্টার ও হোস্টেল নির্মান প্রকল্প গ্রহন করে। ইতোমধ্যে গাজীপুরের কালীগঞ্জের ট্রেনিং সেন্টারটি উদ্বোধন করা হয়েছে। আজ ভিড়িও কনফারেন্সের মাধ্যমে বাকী তিনটি উদ্বোধন করা হল। এই সকল আবাসিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের মাধ্যমে ১৮-৩৫ বয়স সীমার মধ্যে স্বল্প শিক্ষিত সুবিধা বঞ্চিত অদক্ষ মহিলাদের আধুনিক গার্মেন্টস, বেসিক কম্পিউটার, টেইলারিং/এমব্রডারী, বিউটিফিকেশন, পেস্টি এন্ড বেকারী প্রোডাকশন, নাসিং/ধাত্রী বিদ্যা প্রভৃতি ট্রেডে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। প্রতিটি প্রশিক্ষণের মেয়াদ হবে ৪ মাস। প্রতি ব্যাচে ৫০ জন করে নারী প্রশিক্ষণ নিতে পারবে। কোর্স শেষে প্রশিক্ষনার্থীদের ভাতা প্রদান করা হবে।

জানাগেছে, মঠবাড়িয়া উপজেলার দক্ষিণ গুলিসাখালী গ্রামে ফরাজি বাড়ির সম্মূখে নির্মাণ সম্পন্ন  এ মহিলা বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের জমি দান করেছেন  দক্ষিন গুলিসাখালী গ্রামের এস্কান্দর আলী ফরাজীর ছেলে সৌদি প্রবাসি আওয়ামীলীগ নেতা ইউসুফ মাহমুদ ফরাজী ও তার ভাই ইসমাইল হোসেন ফরাজী । এ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রর মাধ্যমে এলাকার পিছিয়ে পড়া নারীদের নানা বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ দিয়ে দক্ষ জনশক্তিতে পরিনত করা হবে।

 

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন