বামনা(বরগুনা)প্রতিনিধি >>
বরগুনার বামনা উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নির্মল চন্দ্র শীল প্রাথমিক শিক্ষার মান উন্নয়নে মাঠ পর্যায়ে প্রাথমিক বিদ্যালয় সমূহে নানা উদ্যোগমূল কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছেন। এ উদ্যোগের ফলে উপকূলীয় বামনার প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার মান উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা রাখছে। তিনি এলাকায় শিক্ষাবান্ধব একজন কর্মকর্তা হিসেবে ইতিমধ্যে গ্রহণযোগ্যতা অর্জণ করেছেন।
জানাগেছে, সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নির্মল চন্দ্র শীল ২০১০ সালের ২৬ এপ্রিল সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা পদে যোগদান করেন। এর আগে তিনি পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার ঐতিহ্যবাহী মহিউদ্দি মহিলা মহাবিদ্যালয়ে ইংরেজী বিভাগের প্রভাষক পদে সুনামের সাথে শিক্ষকতা করেন। বর্তমানে তিনি বামনা উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষক পদে কর্মরত রয়েছেন।
তিনি চাকুরিতে যোগদানের পর থেকে তার শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে প্রাথমিক শিক্ষার মান সম্প্রসারণে নানা উদ্যোগ নেন। যা স্থানীয়ভাবে শিক্ষার মান উন্নয়নসহ সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয় পরিচালনায় বিশেষ পরিবর্তন এনে দেয়।
তিনি তার দক্ষতা দিয়ে কমিউনিটি বেইজ বিদ্যালয়ে ভাষা শহীদদের স্মরণে শহীদ মিনার স্থাপনের উদ্যোগ নেন। বিদ্যালয়ের প্রাক প্রাথমিক শ্রেনী শিশুর শিক্ষার আনন্দের জন্য সজ্জিত করণে নানা কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেন। প্রায় ৫০ ভাগ বিদ্যালয়ে শিশুর খেলাধূলার ব্যবস্থা গ্রহণ করেন। বিশ^ মা দিবস ও বিশ^ শিশু দিবস যথ্যথভাবে পালনে নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেন। প্রতিটি বিদ্যালয়ে শিশুদের স্কুল ইউনিফরম ও সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের ইউনিফরম ব্যবহারে উদ্যোগী ভূমিকা নেন। প্রতিটি বিদ্যালয়ে শিশুদের মনোবিকাশে সাংস্কৃকিত দল গঠন করেন। তিনি বিদ্যালয় পর্যায় শিশুর মিড ডে মিল এর খাদ্যের মান নিয়ন্ত্রণ সহ সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার বিষয়ে নিয়মিত তদারকি করে আসছেন। তিনি বিদ্যালয়ে শিশুর পিছিয়ে পড়া রোধ করে নিজেই পালাক্রমে শ্রেণী কক্ষে পাঠদানও করে আসছেন। ক্লাস্টার ভিত্তিক বিজ্ঞান চর্চা উৎসাহিত করতে বিজ্ঞান মেলার আয়োজনসহ শিশুর মেধা ও মননশীলতা বিকাশে নানা সৃজনশীল প্রদর্শনীর আয়োজন করে চলেছেন। প্রতিটি বিদ্যালয়ে শৌচাগার শিশুর স্বাস্থ্যসম্মত রাখ ও শিশুদের প্রাত্যহিক স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কে সচেতনা সৃষ্টি করেছেন। প্রতিটি বিদ্যালয়ে সততা স্টোর চালু ও মহানুভবতা কর্ণার প্রবর্তন করেন। তিনি বিদ্যালয়ে নানা প্রতিযোগিতামূলক কর্মসূচি আয়োজন করে শিশুদের মেধা বিকাশে বই ও পরিবেশ সচেতনতায় ফলজ বৃক্ষ উপহার চালু করেন।

এ বিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি পাথরঘাটা শাখার সভাপতি মো. ছগীর হোসেন বলেন, একজন সফল শিক্ষা অফিসার হিসেবে নির্মল চন্দ্র মীল ইতিমধ্যে শিক্ষা অধিদপ্তরে সুনাম কুড়িয়েছেন । প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার মান উন্নয়েন তার কর্মএলাকায় গৃহিত কর্মসূচি প্রতিটি বিদ্যালয়ে মডেল কর্মসূচি হিসেবে গ্রহণযোগ্য।

বামনা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা অম্বরিশ চন্দ্র সরকার বলেন, সহকারী শিক্ষা অফিসার এর কার্যক্রম সন্তোষজন। তিনি একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা হিসেবে তৃণমূলে শিক্ষার মান উন্নয়নে সচেষ্ট রয়েছেন। ইতিমধ্যে তিনি শিক্ষা অধিদপ্তরে সুনাম অর্জণ করেছেন। প্রাথমিক শিক্ষার মান উন্নয়নে তার উদ্যোগ মূলক কার্যক্রম প্রশংসনীয়।

এ বিষয়ে বরগুনা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এসএম মিজানুর রহমান বলেন, প্রাথমিক শিক্ষার মান উন্নয়নে স্কুল পর্যায়ে সরকার নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। সহকারী শিক্ষা কমৃকর্তা নির্মল চন্দ্র শীল এসব কর্মসূচির বাইরেও ব্যাক্তিগত উদ্যোগে তার কর্মএলাকার স্কুল গুলোতে উন্নয়ন মূল কিছু উদ্যোগ নিচ্ছেন। যা বিশেষ উদ্যোগ হিসেবে গ্রহণযোগ্যাতা পেয়েছে।

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন