মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি >>

পিরোজপুর মঠবাড়িয়ায় সেনাবাহিনীর চিকিৎসক কর্ণেল পরিচয় দিয়ে প্রতারনার মাধ্যমে এক যুবতীকে বিয়ের পর যৌতুকের দাবিতে নির্যাতনের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় আলমগীর হোসেন(৬০)নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার দিনগত রাতে মঠবাড়িয়া উপজেলার বকশীর ঘটিচোরার নিজ বাড়ি থেকে তাকে আট করা হয়। পরে স্ত্রীর দায়ের করা মামলায় আজ শনিবার তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ।

নির্যাতিত গৃহবধূ নাজনীন আক্তার(২৩) এর অভিযোগ স্বামী আলমগীর সেনাবাহিনীর কর্ণেল ও চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে তাকে দ্বিতীয় বিয়ে করে পরে দাবীকৃত ৫লাখ টাকা যৌতুক দাকি করে। না দেয়ায় প্রথম স্ত্রীর সহায়তায় দ্বিতীয় স্ত্রী নাজনিন কে মারধর করে আটকে রাখে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, বরিশালের মুলাদী থানার কাজীরচড় এলাকার নুর মোহাম্মদ হাওলাদারের সাথে ২০১৩ সালে মঠবাড়িয়ার বকশীর ঘটিচোরা গ্রামের মৃত আবদুর রহমানের পুত্র আলমগীর হোসেন এর পরিচয় হয়। সে নিজেকে সেনাবাহিনীর চিকিৎসক ও কর্ণেল দাবী করে। এছাড়াও আলমগীর সৌদি রাজ পরিবারের সাথে তার বহুজাতিক কোম্পানির ব্যবসা আছে বলে জানায়। ওই সময় আলমগীর তার প্রথম বিয়ের কথা গোপন রেখে নুর মোহাম্মদের কাছে ব্যবসা দেখাশুনা ও সংসার পরিচালনার জন্য একজন উচ্চ শিক্ষিত মেয়ের দরকার বলে জানান। নুর মোহাম্মদ সরল বিশ্বাসে তার কলেজ পড়–য়া মেঝ মেয়ে নাজনিন আকতারের সাথে আলমগীরের ২০১৩ সালের ৩মে ইসলামী শরিয়ত মোতাবেক রেজিষ্ট্রি কাবিন মূলে বিয়ে হয়। পরে জানা জানি হয় জামাই আলমগীরের প্রথম স্ত্রী ও মেয়ে রয়েছে।
মামলায় আরও অভিযোগ আনা হয়, আলমগীর নিজেকে জে.এফ কম্পোজিট টেক্সটাইল লিঃ চেয়ারম্যান দাবী করে ওই কোম্পানিতে বিভিন্ন পদে লোক নেয়া ও সৌদি আরবে লোক পাঠানোর কথা বলে শশুর নুর মোহাম্মদের কাছ থেকে ৩০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। সম্প্রতি প্রতারক জামাই আলমগীর ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবী করে।
যৌতুক দিতে অপরগতা প্রকাশ করলে তাকে প্রথম স্ত্রীর সহযোগিতায় বৃহস্পতিবার রাতে বেধড়ক মারধর করে বাথরুমে আটকে রাখে। খবর পেয়ে শুক্রবার রাতে আহত নাজনীনকে থানা পুলিশ উদ্ধার করে উপজেলা ্স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এসময় পুলিশ ভূয়া কর্ণেল ডা. আলমগীর হোসেনকে আটক করে।
এ ঘটনায় নির্যাতিত গৃহবধূ নাজনীন আক্তার বাদি হয়ে স্বামী আলমগীর হোসেনের বিরুদ্ধে মঠবাড়িয়া থানায় একটি যৌতুক ও নির্যাতন মামলা দায়ের করলে পুলিশ ওই মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে আজ শনিবার আদালতে সোপর্দ করে।

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ গোলাম ছরোয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গ্রেফতারকৃত আলমগীরের বিরুদ্ধে ভূয়া কর্ণেল পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন জনের সাথে প্রতারনার অভিযোগ রয়েছে। দ্বিতীয় স্ত্রীর দায়ের করা যৌতুক মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন