মাননীয় সচিব,
সাংস্কৃতিক বিষয়ক মন্ত্রনালয়,
বাংলাদেশ সচিবালয়, ঢাকা।

বিষয়ঃ ভাষা শহীদদের স্মরণে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের আদলে মঠবাড়িয়া পৌর শহরে একটি শহীদ মিনার নির্মানের আবেদন।
জনাব,

বিনীত নিবেদন, মঠবাড়িয়া উপজেলা বাংলাদেশের অন্যতম বৃহত্তম উপজেলা এবং মঠবাড়িয়া উপজেলা সদর একটি প্রথম শ্রেণীর পৌর সভা। এই উপজেলায় জন্ম গ্রহন করেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর ও ভাষা সৈনিক মহিউদ্দীন আহমেদ ও তাঁর অগ্রজ মোশারেফ উদ্দিন আহমেদ এবং বরিশাল বিএম কলেজের ততকালীন ছাত্র হাবিবুর রহমান খান। বাংলা ভাষার জন্যে ১৯৫২ সালের ২১-২২ ফেব্রুয়ারী রফিক উদ্দিন, সালাহ উদ্দিন, আঃ জব্বার, আবুল বরকত, শফিউর রহমান, আঃ আউয়াল, অহিউল্লাহ, আঃ সালাম সহ ৩৯ জন ব্যাক্তির জীবন দানের বিনিময়ে আমরা রাষ্ট্র ভাষা বংলা পেয়েছি। অতপর ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর একটি স্বাধীন জাতি হিসেবে বিশ্বের বুকে মাথা উচুঁকরে দাড়াতে সক্ষম হয়েছি। বাংলা ভাষাকে নিয়ে গর্ব করার অধিকার পেয়েছি। জনসংখ্যার দিক থেকে বাংলা ভাষা এখন পৃথিবীতে ৬ষ্ঠ স্থানীয়। আমাদের সাথে সারা পৃথিবীর মানুষ ২০০০ সাল থেকে ২১ ফোব্রুয়ারী মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালন করে আসছেন। পশ্চিম আফ্রিকার সিয়েরা লিওল সরকার ২০০২ সাল থেকে বাংলা ভাষাকে অন্যতম সরকারী ভাষা হিসেবে ব্যাবহার করে আসছেন। ভাষা শহীদদের স্মরণে বাংলাদেশের প্রত্যেক জেলা ও উপজেলা সদরে সরকারী অর্থে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের আদলে শহীদ মিনার নির্মিত হয়েছে। পরিতাপের বিষয়, মঠবাড়িয়া উপজোলা সদর তথা পৌর শহরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের আদলে আজ পর্যন্ত শহীদ মিনার নির্মিত হয়নি। কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের আদলে এখানে একটি শহীদ মিনার নির্মাণের বিনীতভাবে আবেদন জানাচ্ছি ।

মো. নূর হোসাইন মোল্লা

অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক

মঠবাড়িয়া,পিরোজপুর।

 

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন