মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি >>

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া থানা পুলিশ ও গ্রামবাসি মিলে দেশীয় আগ্নেয়াস্ত্র সহ রিপন কাজী (৪২) নামে এক দুর্ধর্ষ ডাকাতকে গ্রেপ্তার করেছে। আজ রবিবার সকালে উপজেলার গুলিশাখালী গ্রামের সড়কে পুলিশ ও গ্রামবাসী মিলে ধওয়া করে ঐ ডাকাতকে আটক করে। এসময় তার সঙ্গে বহনকৃত একটি দেশীয় এলএমজি বন্দুক, ৫টি কার্তুজ, টর্চলাইট, মোবাইল ফোনসেট ও চার্জার উদ্ধার করে।
পুলিশ জানায় গ্রেপ্তারকৃত ডাকাত রিপন আন্ত:জেলা ডাকাত দলের সদস্য । সে উপজেলার গুলিশাখালী ইউনিয়নের লক্ষনা গ্রামের মতিউর রহমান কাজীর ছেলে।

থানা সূত্রে জানাগেছে. আজ রবিবার সকাল ছয়টার দিকে উপজেলার লক্ষনা গ্রামের সড়ক দিয়ে ডাকাত রিপন সশস্ত্র অবস্থায় গুলিশাখালীর দিকে যাচ্ছিল। এ সময় গ্রামবাসী দেখতে পেয়ে থানা পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনা স্থলে গেলে ডাকাত রিপন দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলে পুলিশ ও গ্রামবাসী মিলে ধাওয়া করে স্থানীয় জুয়েল মেম্বরের বাড়ীর সামনের রাস্তা থেকে তাকে আটক করে।

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইন-চার্জ কে.এম. তারিকুল ইসলাম জানান, গ্রেপ্তারকৃত ডাকাত রিপন আন্ত:জেলা ডাকাত দলের সদস্য। তার বিরুদ্ধে উপকূলীয় মঠবাড়িয়াসহ বিভিন্ন থানায় একাধিক ডাকাতি মামলা ও দস্যুতার অভিযোগ রয়েছে। এ ঘটনায় মঠবাড়িয়া থানার উপ পরিদর্শক মো. মাহফুজ বাদি হয়ে আজ রবিবার মঠবাড়িয়া থানায় অস্ত্র আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। তাকে আদালতের মাধ্যেমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন