মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি >>

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য ডা. রুস্তম আলী ফরাজীর বিরুদ্ধে জোট সরকারের আমলে প্রভাব খাটিয়ে মুক্তিযোদ্ধা তালিকাভূক্ত হওয়ার অভিযোগ তুলেছেন স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা। আজ রবিবার মঠবাড়িয়া প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে মুক্তিযোদ্ধারা এ অভিযোগ তোলেন।

মুক্তিযুদ্ধকালীন ভারতের হাসনাবাদ আমলানী যুব প্রশিক্ষণ ক্যাম্পের পলিটিক্যাল মটিভেটর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তফা শাহ আলম দুলাল সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ।
তিনি অভিযোগে বলেন, ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধের অন্যতম সংগঠক সওগাতুল আলম সগীরের নেতৃত্বে মঠবাড়িয়ায় মুক্তিযুদ্ধ সংঘঠিত হয়। কে এম লতিফ হাই স্কুল মাঠে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রশিক্ষণের সময় স্থানীয় বর্তমান সংসদ সদস্য ডা. ফরাজী কোনো প্রশিক্ষণে এবং মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেননি। তিনি বিএনপি-জামায়াত সরকারের আমলে রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে মুক্তিযোদ্ধা তালিকাভূক্ত হয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন মুক্তিযুদ্ধ কালীন সুন্দরবন সাব সেক্টরের কমান্ডিং ইয়াং অফিসার মজিবুল হক খান মজনু, মুক্তিযোদ্ধা এমাদুল হক খান, মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম জালাল, ফরিদ উদ্দিন আহমেদ ও শহীদ পরিবারের সদস্য মো. ফারুক উজ্জামান প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে সম্প্রতি এমপির তিন সমর্থক কর্তৃক ৫৭ ধারায় পৃথক দু’টি মামলা ও একটি হত্যা চেষ্টা মামলার নিন্দা জানিয়ে তা অবিলম্বে প্রত্যারের দাবি জানান মুক্তিযোদ্ধারা ।
এ বিষয়ে স্বতন্ত্র এমপি ডা. রুস্তম আলী ফরাজী তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত কতিপয় ব্যাক্তি আমাকে রাজনৈতিক ও সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করতে বানোয়াট অপপ্রচার চালাচ্ছেন।

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন