মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি >

জমির মালিকানা নিয়ে বিরোধের জের ধরে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার বড়শৌলা গ্রামে প্রতিপক্ষ প্রভাবশালীদের কেটে ফেলা রাস্তা মঠবাড়িয়া উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও নির্বাহী কর্মকর্তার উদ্যোগে রমরামত করা হয়েছে। আজ শুক্রবার সকালে ইউএনও এস.এম ফরিদ উদ্দিন আজ শুক্রবার স্থানীয় সাংবাদিকদের নিয়ে ওই কেঁটে ফেলা রাস্তা পুণ নির্মাণ করেন। এসময় মঠবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি আবদুস সালাম আজাদী, সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান, সাংবাদিক মিজানুর রহমান মিজুসহ স্থানীয় সকল সাংবাদিক ও স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
জানাগেছে,গত ২৬ এপ্রিল জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের ধরে উপজেলার বড় শৌলা গ্রামের হালিম ও তার ভাই শাহ আলম ফকির গং প্রতিবেশি কৃষক লতীফ ফকিরের দীর্ঘ ১৫ বছরের চলাচলের রাস্তা কেঁটে পানির ডোবার সাথে মিশিয়ে দেয়। এতে ওই দুটি কৃষক পরিবারের ৪ শিক্ষার্থীসহ ১৫ সদস্য গত ১২ দিন ধরে চলাচল করতে না পেরে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন। পরে ঘটনার ওই দিনই ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার থানা পুলিশকে লিখিত ভাবে অবহিত করে । তবে কোন প্রতিকার মেলেনি। এতে ভূক্তভোগি পরিবার দুটি প্রাত্যহিক চলাচলে চরম দুর্ভোগে পড়েন।

এদিকে ওই স্থানে রাস্তা পূণ নির্মান করতে না পারে সেজন্য প্রভাবশালী হালিম গত ২ মে মঠবাড়িয়া বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি মিস পিটিশন মামলা দায়ের করে। বিজ্ঞ আদালত ওই স্থানে ১৪৪/১৪৫ ধারা জারি করে।

মঠবাড়িয়া উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস.এম ফরিদ উদ্দিন বিষয়টি সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় দুই পরিবারের চলাচলের ভোগান্তির সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে এবং শিক্ষার্থী স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গের আবেদনের প্রেক্ষিতে মানবিক কারনে ১৪৪/১৪৫ ধারা প্রত্যাহার করা হয়। আজ শুত্রবার তাঁর উপস্থিতিতে জনস্বার্থে কেটে ফেলা রাস্তাটি মেরামত করা হয়।

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন