স্বাধীনতার মজাই আলাদা,তবে স্বাধীনতা শুধু অর্জন করলেই হবে না,একে রক্ষাও করতে হবে,স্বাধীনতা অর্জনের জন্য যত কষ্ট সাধনা করতে হয়েছে তা রক্ষার জন্য আরও বেশি ত্যাগ সাধনা করতে হবে।তা না হলে স্বাধীনতা হারিয়ে যেতে পারে,তাই যে লক্ষ্ ও উদ্দেশ্য নিয়ে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে তার দাবি পূরণ করতে হবে।
দেশ ও জাতির আপন সত্তা সুরক্ষার  দায়িত্ব তোমার-আমার,আমাদের সকলের,তরুণ প্রজন্মকে ভালো করে গড়ে তুলতে হবে । খারাপ কাজ থেকে দূরে থাকতে হবে,অন্যায় কাজে বাধা দিতে হবে,হিংসা,বিদ্বেষ ভুলে সবাই মিলে একসাথে থাকতে হবে,মারামারি বিবাদ,বিশৃঙ্খলা পরিহার করতে হবে,গরীব দুঃখীদের সহযোগিতা করতে হবে,বড়দের সন্মান,আর ছোটদের স্নেহ করতে হবে,মানুষে মানুষে বৈষম্য দূর করতে হবে,দেশকে ভালোবাসতে হবে,দেশের জন্য_দশের জন্য কাজ করতে হবে! এতে বিশ্বের বুকে আমাদের দেশের সন্মান বাড়বে,স্বাধীনতা সুসংহত হবে।স্বাধীনতার আনন্দের সাথে সাথে এসব বিষয়ও আমাদের মনে রাখতে হবে । তাহলে স্বাধীনতার আনন্দ সার্থক হবে, পরিশেষে শুধু এটুকু বলবো_বিদেশি, বিজাতীয় সংস্কৃতি পরিহার করতে হবে ।
আর আমাদের আপন সংস্কৃতি চর্চা বাড়িয়ে সকলকে স্বদেশ প্রেমে উদ্বুদ্ধ হতে হবে তাহলেই আমাদের পূর্ণ স্বাধীনতা বিরাজ করবে!
লেখক:আল আহাদ বাবু«মঠবাড়িয়া সরকারী কলেজ

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন