পিরোজপুর প্রতিনিধি <>
পিরোজপুরে স্ত্রী আসমা বেগম (২৬) কে গলা কেটে হত্যার দায়ে স্বামী মো.রেজাউল মোড়ল (৪০) নামের এক ব্যাক্তিকে ফাঁসির রায় দিয়েছেন আদালত। আজ বুধবার দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ মো. আব্দুল মান্নান আসামীর উপস্থিতিতে এ রায় প্রদান করেন। ফাঁসির দন্ডাদেশ প্রাপ্ত রেজাউল মোড়ল খুলনা জেলার ডুমুরিয়া উপজেলার মালতিয়া গ্রামের মো. আ: কাশেমের পুত্র। আর নিহত স্ত্রী আসমা বেগম সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলার শোভাশেনী গ্রামের মো. শাহজাহান মোড়লের কন্যা ।
তারা স্বামী-স্ত্রী পিরোজপুর শহরের মাছিমপুরের বলাকা ক্লাব সংলগ্ন গাজীবাড়ী রোড়ের রুবেল তালুকদারের বসত ঘরের উত্তর পাশের অংশে ভাড়াটিয়া হিসাবে থাকত। রেজাউল স্থানীয় খাল কাটার শ্রমিক হিসাবে কাজ করতো, আর স্ত্রী আসমা অন্য শ্রমিকদের খাবার রান্না করে দিতেন।
আদালত সূত্রে জানা গেছে, গত ২০১৬ সালের ২২ ডিসেম্বর রাত ১১টার দিকে আসামী মো. রেজাউল খাবার খেয়ে স্ত্রীকে নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। পরের দিন সকালে তাদের ঘরে খাবার খেতে আসা শ্রমিক আলমগীর তাদের ডাক দিলে তাদের কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে ঘরের দরজা দিয়ে উকি মেরে দেখেন ঘরের মেজেতে রক্তাক্ত অবস্থায় গৃহবধুর লাশ পড়ে আছে। আলমগীর ঘর মালিকের স্ত্রী রূপা বেগমকে সাথে নিয়ে ঘরে ঢুকে দেখতে পান ওই গৃহবধুর গলাকাটা লাশ। পরে স্থানীয়রা থানা পুলিশে খবর দিলে লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরন করা হয়। ওই রাত থেকে পরের দিন সকালের মধ্যে কোন এক সময় স্বামী রেজাউল স্ত্রীকে গলাকেটে হত্যা করে পালিয়ে যায়। মামলা সূত্রে আরো জানা গেছে, তারা স্বামী-স্ত্রী প্রায়ই জগড়া বিবাদ করতো। কিন্তু এ হত্যাকান্ডের ২ মাস আগে তারা তাদের নিজ এলাকা থেকে পিরোজপুর শহরে এসে ওই বাড়িতে ভাড়ায় থাকতো।
এ ঘটনায় নিহতের পিতা মো. শাহজাহান মোড়ল বাদী হয়ে পিরোজপুর সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলার দীর্ঘ শুনানী শেষে আসামীর উপস্থিতিতে বিচারক এ রায় প্রদান করেন।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন