পিরোজপুর প্রতিনিধি  <>
পিরোজপুরের নাজিরপুরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে স্বামী পরিত্যক্তা এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে অবশেষে উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক তারেক হাসানের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা উপজেলার মালিখালী ইউনিয়নের দক্ষিণ তুতবাড়ী গ্রামের আবুল হাশেম খলিফার ছেলে। এ ধর্ষনের শিকার নারীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে ছাত্রলীগ নেতা তারেক হাসানের বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টায় থানায় একটি মামলা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন নাজিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মুনিরুল ইসলাম মুনির।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, হতদরিদ্র পরিবারের ওই নারীর বাবা মারা যাওয়ার পরে সে মায়ের সাথে মামা বাড়ীতে বসবাস করে আসছে। পাশ্ববর্তী চিতলমারী উপজেলায় ওই নারীর বিয়ে হলেও স্বামীর সাথে বনিবনা না হওয়ায় ৫ বছরের একমাত্র মেয়েকে নিয়ে সে মামা বাড়ীতে মায়ের কাছে থাকে। বুধবার রাতে ওই নারীর মা বাড়ীতে না থাকার সুযোগে রাত ১০টার দিকে ছাত্রলীগ নেতা তারেক ঘরে ঢুকে ওই নারীকে ধর্ষণ করে। এ সময় মেয়েটির মামাতো ভাই সুজনসহ স্থানীয়রা ছাত্রলীগ নেতা তারেককে হাতে নাতে আটক করলেও সে কৌশলে পালিয়ে যায়। বৃহস্পতিবার সকালে ওই নারী বিয়ের দাবীতে সকাল থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত ছাত্রলীগ নেতা তারেক হাসানের ঘরে অবস্থান করে। পরে উপজেলার মাটিভাঙ্গা তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক খান মো. মিজানুর রহমান ওই নারীকে সেখান থেকে উদ্ধার করে নাজিরপুর থানায় নিয়ে আসেন।
ছাত্রলীগ নেতা তারেকের ঘরে অবস্থান কালে ওই নারী জানান, তারেক দীর্ঘদিন ধরে বিয়ের প্রলোভনে তাকে ধর্ষণ করে আসছে। বুধবার রাতে তারেক ঘরে ঢুকে তাকে ৩/৪ বার ধর্ষণ করে। এ সময় স্থানীয়রা তাকে হাতেনাতে আটক করলে সে ওই নারীকে বিয়ে করতে অস্বীকার করে কৌশলে পালিয়ে যায়।
উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মো. তরিকুল ইসলাম চৌধুরী তাপস অভিযুক্ত তারেক হাসানকে উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক হিসাবে স্বীকার করে জানান, এমন অভিযোগের সত্যতা প্রমান পেলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।
নাজিরপুর থানার ওসি মো. মুনিরুল ইসলাম জানান, সংবাদ পেয়ে তাৎক্ষনিক সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পুলিশ ওই ছাত্রলীগ নেতার বাড়ী থেকে ধর্ষিতাকে উদ্ধার করেছে। তার অভিযোগের প্রেক্ষিতে থানায় একটি মামলা রুজু হয়েছে। অভিযুক্ত তারেককে গ্রেফতারে পুলিশী তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন