মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি >>

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় চাঞ্চল্যকর মিরুখালীর একটি স্কুলের ১০ম শ্রেণীর স্কুলছাত্রী গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামীসহ তিন আসামীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। বুধবার দিনগত গভীর রাতে মিরুখালী বাজারে অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামী মো. সাইফুল জমাদ্দার(২০) সহযোগি ধর্ষক শাওন জমাদ্দার(২২) ও নাজমুল হাওলাদার(২১) কে গ্রেফতার করে । অভিযুক্ত বখাটেরা ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিল। গ্রেফতারকৃত প্রধান আসামী সাইফুল উপজেলার ওয়াহেদাবাদ গ্রামের মতিউর রহমান জমাদ্দারের ছেলে। এছাড়া বখাটে শাওন ওয়াহেদাবাদ গ্রাামের খোকন জমাদ্দার এর ছেলে নাজমুল একই গ্রামের সুলতানের হাওলাদার ছেলে।

থানা সূত্রে জানাগেছে, গত ৩০ নভেম্বর ২০১৮ ইং দুপুরে ওই স্কুল ছাত্রী উপজেলার খায়ের ঘটিচোরা গ্রামের বাড়ি থেকে মিরুখালী বাজারের স্কুলে প্রাইভেট পড়তে যায়। এসময় পথে ওই ছাত্রীর পূর্ব পরিচিত সাইফুল কথা বলার জন্য রস্তার পাশে একটি ঘরে মেয়েটিকে ডেকে নেয়। এরপর ওই ঘরে ওঁৎ পেতে থাকা সাইফুল ও তার সহযোগি বখাটে ইসমাইল, শাওন, নাজমুলসহ চার বখাটে মিলে ওই স্কুল ছাত্রীকে জোরর্পূবক পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এসময় বখাটেরা ধর্ষণের ভিডিও মোবাইল ফোনে ধারণ করে রাখে। ভূক্তভোগি স্কুল ছাত্র বখাটেদের কবল থেকে মুক্ত হয়ে বাড়ি ফিওে যায়। এ ঘটনা মেয়েটি তার পরিবারকে জানায়। লোক লজ্জার ভয়ে ওই ছাত্রী ও তার পরিবার চেপে য়ায়। এরপর গত ২৪ ফেব্রুয়ারী ধর্ষক সাইফুল ও ইসমাইল ওই ছাত্রী স্কুলে আসার পথ আটকে ধর্ষণের ভিডিও সামাজিক সাইটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে নতুন করে কুপ্রস্তাব দেয়। ওই স্কুল ছাত্রী ঘটনাটি অভিভাবকদের জানালে নির্যাতিত স্কুলছাত্রীর মা বাদী হয়ে চার ধর্ষকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় পুলিশ ইসমাইল নামে এক বখাটেকে গ্রেফতার । পরে বাকী পলাতক তিন আসামী প্রযুক্তি ব্যবহার করে বুধবার গভীর রাতে গ্রেফতার করে । ফলে এ মামলায় অভিযুক্ত সকল আসামীই গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় ।

এ বিষয়ে মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আব্দুল্লাহ বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, গণধর্ষণ মামলার সকল আসামী গ্রেফতার করা হয়েছে। অভিযুক্ত আসামীদের আজ বৃহস্পতিবার আদালতে হাজির করলে তারা স্বীকারোক্তিমূল জবানবন্দী দিয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন