মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি >>

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার মিরুখালীতে চাঞ্চল্যকর ১০ম শ্রেণীর স্কুল ছাত্রী গণধর্ষণ মামলার আসামী বখাটে শাওন (২২) ও নাজমুল (২১) কে অবশেষে থানা পুলিশ গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে। দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর বুধবার (১২ জুন) সন্ধ্যায় মিরুখালী বাজারের ব্রিজের ওপর হতে দু’জনকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত শাওন ওয়াহেদাবাদ গ্রামের খোকন ও নাজমুল একই গ্রামের সুলতানের পুত্র।
থানা পুলিশ জানায়, গত ৩০ নভেম্বর ২০১৮ ইং দুপুরে ওই স্কুল ছাত্রী উপজেলার খায়ের ঘটিচোরা গ্রামের বাড়ি থেকে মিরুখালী বাজার সংলগ্ন স্কুলে প্রাইভেট পড়তে যায়। এসময় পথের মধ্যে ওই ছাত্রীর পূর্ব পরিচিত সাইফুল নামে এক বন্ধু কথা বলার জন্য রাস্তার পাশে একটি ঘরে ডেকে নেয়। এরপর ওই ঘরে ওঁৎ পেতে থাকা সাইফুল এর বন্ধু ইসমাইল, শাওন, নাজমুলসহ ৪ সহযোগী ওই স্কুল ছাত্রীকে জোরর্পূবক পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এসময় ধর্ষণের অশ্লীল চিত্র মোবাইলে ধারণ করে। এ ঘটনাটি লোক লজ্জার ভয়ে ওই ছাত্রী ও তার পরিবার চেপে য়ায়। এরপর গত ২৪ ফেব্রুয়ারী ধর্ষক সাইফুল ও ইসমাইল ওই ছাত্রী স্কুলে আসার পথে ধর্ষণের ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে আবারও শারীরিক সম্পর্ক করার প্রস্তাব দেয়। ওই স্কুল ছাত্রী ঘটনাটি অভিভাবকদের জানালে ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে চারজন ধর্ষকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় ইসমাইল নামের একজন গ্রেফতার হলেও বাকী তিন আসামী দীর্ঘদিন ধরে পলাতক থাকে।
মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আব্দুল্লাহ জানান, গণধর্ষণ মামলার আসামী শাওন ও নাজমুলবে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ মামলার প্রধান আসামী সাইফুলকেও গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন