পিরোজপুর প্রতিনিধি>>
পিরোজপুর সদর উপজেলার পাঁচপাড়া বাজারে পাঁচপাড়া সার্বজনিন শ্রী শ্রী কালী মন্দির ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে জেলা আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট মো: শহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে। শনিবার দিবাগত রাত আনুমানিক ২টার দিকে পিরোজপুর সদর উপজেলা শিকদারমল্লিক ইউনিয়নের পাঁচপাড়া বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে জানান পিরোজপুর সদর থানার ওসি এস এম জিয়াউল হক।
এ ঘটনায় পুলিশ অহেদ হাওলাদার (৪৫) ও মুহিদুল ইসলাম (৫০) নামের দুই জনকে আটক করেছে।
শিকদার মল্লিক ইউনিয়ন পুজা উদযাপন কমিটির সধারণ সম্পাদক শেখর চন্দ্র মন্ডল জানান, জেলা আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট মো: শহিদুল ইসলামের সাথে পাঁচপাড়া বাজারে সার্বজনিন শ্রী শ্রী কালী মন্দিরে জায়গা নিয়ে আদালতে মামলা চলমান ছিল। কিন্তু গত নির্বাচনের পরপরই ইউপি চেয়ারম্যান মামলার বাদি ও সাক্ষীকে জিম্মিকরে মামলা খারিজ করে দেয়। এ ঘটনার জেড় ধরইে শনিবার দিবগত রাত ২টার দিকে ইউপি চেয়ারম্যানের লোকজন মন্দিরের অবকাঠামো ভাংচুর করে এবং মন্দিরের প্রতিমা পাশের ডোবায় ফেলে দেয়।
পাঁচপাড়া সার্বজনিন শ্রী শ্রী কালী মন্দিরের সভাপতি সুবাস চন্দ্র মিন্ত্রী জানান, গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থী হয়ে নৌকা মার্কা নিয়ে নির্বাচন করে জয়ী হয় বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডভোকেট মো: শহিদুল ইসলাম। তার লোকজন দিয়েই তিনি মন্দির উচ্ছেদ করার জন্য মন্দিরে হামলা চালিয়েছে।
পিরোজপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোল্লা আজাদ হোসেন জানান, স্থানীয়রা ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে ও জড়িতদের গ্রেপ্তার দাবীতে পিরোজপুর-নাজিরপুর-ঢাকা সড়ক অবোরধ করলে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে এনে সড়ক অবোরধ তুলে দেয়। ঘটনার পরপরই দুই জনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনার সাথে যে কেউ জড়িত থাকুক না কেন তাকে আইনের আওতায় আনা হবে এবং ঘটনার বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান এ্যাড. শহিদুল ইসলাম তার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, এ ঘটনার সাথে তিনি জড়িত নন। তিনি বর্তমানে ঢাকায় অবস্থান করছেন।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন