মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি >>

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ৪৭তম স্কুল-মাদ্রাসা গ্রীষ্মকালীন ক্রীড়া ফুটবল খেলায় গুলিসাখালী জি.কে ইউনিয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ফুটবল খেলোয়ার ওপর হামলার প্রতিবাদ ও বিচার দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে শিক্ষার্থীরা। এতে গুলিসাখালী ইউনিয়নের ৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকরা অংশ নেন।
আজ সোমবার সকালে ১১টায় হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে স্বস্ব প্রতিষ্ঠানের সম্মুখ সড়কে ঘন্টাব্যাপী এ মানববন্ধ করেন। এতে গুলিসখালী ইউনিয়নের ৪টি মাধ্যমিক, ৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ১টি মাদ্রাসার প্রায় দুই সহস্রাধিক শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকরা অংশ নেন।

মানবন্ধনে গুলিসাখালী জি.কে ইউনিয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কমল চন্দ্র বিশ্বাসের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ইউ,পি চেয়ারম্যান রিয়াজুল আলম ঝনো, মুক্তিযোদ্ধা মোশারেফ হোসেন, অধ্যক্ষ আবদুর রহমান, শিক্ষক নেতা আলহাজ্ব আঃ লতিফ সিকদার, প্রধান শিক্ষক আনোয়ার মাহমুদ, সঞ্জয় কুমার হাওলাদার, মো. শাহ আলম, শিক্ষক মো. শাহ জালাল ও সমাজ সেবক স্বপন তালুকদার প্রমুখ।

উল্লেখ্য ৭ সেপ্টেম্বর শুক্রবার দুপুওে মঠবাড়িয়া সড়রের শহীদ মোস্তফা খেলার মাঠে ৪৭তম গ্রীষ্মকালীন স্কুল-মাদ্রাসা ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ফুটবল খেলা শুরু হয়। খেলায় গুলিসাখালী জোন চ্যাম্পিয়ান দল গুলিসাখালী জি.কে.ইউনিয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় একাদশ বনাম সাপলেজা জোন চ্যাম্পিয়ান সাপলেজা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয় একাদশ অংশ গ্রহণ করে। এসময় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সাপলেজা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ক্রীড়া শিক্ষক মো. জামাল হোসেন বহিরাগত লোকজন নিয়ে গুলিসাখালী জি.কে ইউনিয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রদের ওপর হামলা চালায়। এতে ছয় শিক্ষার্থীকে আহত হন। এঘটনায় ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কমল চন্দ্র বিশ্বাস বাদী হয়ে ৮ সেপ্টেম্বর শনিবার রাতে সাপলেজা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ক্রীড়া শিক্ষক মো. জামাল হোসেনকে প্রধান আসামী করে এজাহার নামীয় ১১ জন ও অজ্ঞাতনামা ১৪০ জনকে আসামী করে মঠবাড়িয়ায় থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন