মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি >>

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ১০ম শ্রেণী পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রীকে বাল্যবিয়ে আয়োজন করায় অভিযুক্ত বরের বাবাকে ১০হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরও দুই মাসের কারান্ডাদেশ দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত।
মঠবাড়িয়া উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জি.এম. সরফরাজ মঙ্গলবার রাতে এ দন্ডাদেশ দেন। এসময় বর ও কনের প্রাপ্ত বয়স না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে না দেয়ার শর্তে মুসলেচা রেখে ছেড়ে দেওয়া হয়।
এলাকাবাসী জানান, দাউদখালী ইউনিয়নের গিলাবাদ গ্রামের আবদুল মনেচ হাওলাদরের মেয়ে ও পার্শবর্তী থানার লতাবুনিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর ছাত্রী ফারজানা আক্তার রুমার সাথে একই এলাকার আব্দুল জলিল হাওলাদারের ছেলে গার্মেন্ট কর্মী সোহেল হাওলাদারের সাথে গোপনে উভয় পরিবারের সম্মতিতে গোপনে বিয়ের প্রস্তুতি নেয়। এসময় স্থানীয় চেয়ারম্যান ফজলূল হক খান রাহাত গোপনে সংবাদ পেয়ে গ্রাম পুলিশের সহায়তায় বর-কনেসহ উভয় পক্ষকে আটক করে। পরে রাতে ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির করলে নির্বাহী ম্যারজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরের বাবাকে ১০হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে দুই মাসের কারান্ডাদেশ দেন।

উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মনিকা আক্তার জানান, গত ১৪ মার্চ মঠবাড়িয়ার দাউদখালী ইউনিয়ন বাল্য বিয়ে মুক্ত ঘোষণা ও সমঝোতা স্বাক্ষরের পর এই প্রথম বাল্যবিয়ে আয়োজনের ঘটনা ঘটছিল।

SIMILAR ARTICLES

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন