মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি :

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার দক্ষিণ বড়মাছুয়া গ্রামের একটি হিন্দু পরিবারের বিরোধীয় জমি দখলের চেষ্টা ও হামলা ভাংচুরের অভিযোগে মামুন হোসেন (৩০) ও তার সহযোগি তোফেল মিয়া (৪৫) নামে দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে নির্যাতিত পরিবারটি মামলা দায়ের করলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত দুইজনকে গ্রেফতার করে।
অগ্নি সংযোগের ঘটনা ঘটেছ্।ে এ সময় প্রতিবাদ করলে ওই সংখ্যালঘুর পরিবারের
গ্রেফতারকৃত মামুন রাজপাড়া গ্রামের হাফিজুর রহমানের ছেলে ও তোফেল একই গ্রামের মৃত সৈজদ্দিন মিয়ার ছেলে।
এ হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় উপজেলার দক্ষিণ বড়মাছুয়া গ্রামের মনিন্দ্র নাথ ওঝা বাদী হয়ে ৯জনের বিরুদ্ধে মঠবাড়িয়া থানায় মামলা দায়ের করেন।

থানা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার দক্ষিন বড়মাছুয়া গ্রামের কৃষ মনিন্দ্র নাথ ওঝা পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া জমি নিয়ে পার্শবর্তী বেতমোর ইউনিয়নের রাজপাড়া গ্রামের প্রভাবশালী হাফিজুর রহমানের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। হাফিজুর রহমান গং জোর পূর্বক ওই জমি দখলে নানাভাবে হিন্দু পরিবারটিকে হুমকি আসছিল। বৃহস্পতিবার সকালে হফিজুর রহমান ও তার দুই ছেলেসহ ৪/৫ জনের একটি দল পরিকল্পিত ভাবে ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোটা নিয়ে জমি দখলের চেষ্টা চালায়। এসময় তারা খড়ের গাদা আগুন ধরিয়ে দিয়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে গোয়ালঘর ও কাচারী ঘর ভাংচুর করে। এছাড়া হামলাকারী সবজি ক্ষেত বিনস্ট করে। এ সময় কৃষক পরিবারের লোকজন বাধা দিতে আসলে দুই নারীকে মাধর কওে হামলাকারীরা।

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ কেএম তারিকুল ইসলাম জানান, পুলিশ অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে । এ ঘটনায় জড়িত দুইজনকে গ্রেফতার করে আজ শুক্রবার আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। অভিযুক্ত অপর আসামীদেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন